fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলে উত্তপ্ত ভাঙড়, ভাঙচুর দোকানপাট,দলীয় কার্যালয়ে আগুন

ফিরোজ আহমেদ, ভাঙড়: তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষ,বোমাবাজিতে উত্তপ্ত ভাঙড়। ঘটনায় দফায় দফায় রাস্তা অবরোধ। দোকানপাট ভাঙচুরে কার্যত তছনছ ভাঙড়ের ঘটকপুকুর। রবিবার তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদের অফিসে যুব তৃণমূল কর্মীদের তান্ডব এবং আগুন লাগিয়ে দেওয়ার ঘটনায় নতুন করে ভাঙড় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

ঘটনার সুত্রপাত শনিবার রাতে। যুব তৃণমূল এবং মূল তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে এলাকার দখলদারি নিয়ে বোমাবাজিতে ঘটকপুকুরের গোবিন্দপুর এলাকা অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। বোমার আঘাতে ভাঙড় ১ এ ব্লক তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি বাদল মোল্লা গুরুতর আহত হন।এর পাশাপাশি আরও ৮ জন কমবেশি আহত হন। যুব সভাপতি বাদল কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এই ঘটনার প্রতিবাদে যুব তৃণমূল কর্মীরা শনিবার রাত থেকে রবিবার পর্যন্ত দফায় দফায় রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় ভাঙড় থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী, নামানো হয় র‍্যাফ।

শনিবার রাতে গোষ্ঠী সংঘর্ষের জেরে রবিবার সকাল থেকে ভাঙড়ের ঘটকপুকুর এলাকা নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। মূলত যুব নেতা আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদের দিকে অভিযোগের আঙ্গুল তুলে সুর চড়াতে থাকে যুব তৃণমূলের কর্মীরা। ঘন্টার পর ঘন্টা বাসন্তী রাজ‍্য সড়ক অবরোধ করে চলে বিক্ষোভ।

এই যুব সভাপতি বাদল মোল্লার উপরে বোমাবাজির পিছনে রয়েছে তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদ গোষ্ঠীর উস্কানি রয়েছে বকে অভিযোগ ওঠে। এরপরেই পরিস্থিতি ভয়ানক চেহারা নিতে শুরু করে। শনিবার রাত থেকে যুব তৃণমূল কর্মীরা হাতে লাঠি নিয়ে বাসন্তী রাজ‍্য সড়কের উপরে ঘটকপুকুরে ঘুরে বেড়াতে থাকে। একের পর এক দোকানপাঠ ভাঙচুর সহ গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। এমনকি ভাঙড় ১ এ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি কাইজার আহমেদের দলীয় কার্যালয়ে তান্ডব চালায় যুব তৃণমূল কর্মীরা। দলীয় কার্যালয়ে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়।আগুনে পুড়ে যায় দল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি সহ তৃণমূলের ব‍্যানার ফ্লেক্স।

এর পাশাপাশি জরুরি কাগজপত্র পুড়ে ছারখার হয়ে যায়।ভএ বিষয়ে কাইজার আহমেদ বলেন, “যারা আমার অফিসে হামলা চালিয়েছে,সরকারি কাগজপত্র নষ্ট করেছে তারা সব দুষ্কৃতী।” কাইজার আরও বলেন, “আমার অফিস ভাঙচুর সহ আমার বিরুদ্ধে বিক্ষোভের পিছনে আরাবুল ইসলামের প্রচ্ছন্ন মদত আছে।” এ বিষয়ে জেলা যুব তৃণমূলের সভাপতি সওকাত মোল্লা বলেন, “বাদলের উপরে যারা আক্রমণ করেছে তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই ঘটনায় পুলিশ তদন্ত করছে।”

এই ঘটনায় ভাঙড় থানার পুলিশ বিভিন্ন যায়গায় অভিযান চালিয়ে ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানিয়েছে ঘটনার তদন্ত চলছে এবং তল্লাশি চলছে।

Related Articles

Back to top button
Close