fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চালু হল ভেসেল পরিষেবা

অমিতাভ মণ্ডল, ডায়মন্ড হারবার:‌ দুই জেলার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি মেনে ডায়মন্ড হারবার থেকে পূর্ব মেদিনীপুরের কুঁকড়াহাটি যাওয়ার জন্য এবার ভেসেল পরিষেবা চালু হল। এতদিন এই পথে হুগলী নদী দিয়ে লঞ্চের মাধ্যমে মানুষ যাতায়াত করতেন। লঞ্চে দুর্ঘটনার একটা সম্ভাবনা থাকে সর্বদা। স্থানীয় মানুষরা ভেসেল চালুর জন্য ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জির কাছে আবেদন করেছিলেন। নতুন রুপে এই পরিষেবা চালুর উদ্যোগ নেন সাংসদ। রাজ্য ভূতল পরিবহন দপ্তর সেই উদ্যোগ বাস্তবায়িত করল।

প্রতিদিন এক ঘন্টা অন্তর ৩টি ভেসেল চলাচল করবে এই পথে। মঙ্গলবার ডায়মন্ড হারবার জেটিঘাটে এই পরিষেবার নতুন রুপে সূচণা করেন ডায়মন্ড হারবারের মহকুমা শাসক তথা পুরসভার প্রশাসক সুকান্ত সাহা। পাশাপাশি কুঁকড়াহাটি ও ডায়মন্ড হারবারের জেটি, পল্টন, গ্যাংওয়ে নতুন করা হয়েছে। এককথায় বলা চলে ঝঁুকিহীন নিরাপদ যাত্রার ব্যবস্থা করল সরকার। এই পরিষেবা পরিচালনা করে ডায়মন্ড হারবার পুরসভা। গত ১২ মার্চ থেকে পল্টন ও গ্যাংওয়ে মেরামতির জন্য ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। তারপর করোনার জন্য লকডাউন শুরু হয়। এরমধ্যে আমফানে ক্ষতিগ্রস্থ হয় কুঁকড়াহাটি জেটি। ৫ মাস ২৬ দিনের মাথায় আবার পরিষেবা চালু হল। ভূতল পরিবহন দপ্তর ডায়মন্ড হারবার পুরসভাকে ৩টি ভেসেল দিয়েছে। এগুলি পর্যায়ক্রমে চলবে। তবে করোনার জন্য সামাজিক দূরত্ববিধি বজায় রাখা হবে। ২০০ জন যাত্রীবহনের ক্ষমতা থাকলেও ৬৬ শতাংশের বেশী যাত্রী ভেসেলে তোলা হবে না।

ডায়মন্ড হারবারের মহকুমা শাসক সুকান্ত সাহা বলেন,‘‌ এই জলপথটি দুই জেলার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দীর্ঘদিন এখানে লঞ্চ চলত। পরে সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জি উদ্যোগ নিয়ে ভেসেল চালানোর জন্য পরিকাঠামো গড়ে তোলা হয়। এদিন থেকে পরিষেবা চালু হয়ে গেল। কোন ভাড়া বাড়ানো হচ্ছে না।’‌

Related Articles

Back to top button
Close