fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

এবার সবজি চাষীরাও আসছেন শস্য বিমার আওতায়

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: এই চাষীদের পাশে দাঁড়াতে রাজ্য সরকার যেমন সরাসরি তাঁদের কাছ থেকে ধান কেনার প্রকল্প চালু করে ঠিক তেমনি প্রাকৃতিক দুর্যোগ হলে যাতে ধানচাষীরা শস্যহানীর দরুণ অর্থ সাহায্য পান সেইজন্য তাঁদের শস্য বিমার আওতাও নিয়ে আসেন। এবার আমফান পরবর্তী বাংলায় শস্য বিমার আওতায় আসতে চলেছেন রাজ্যের সবজি চাষীরাও। জানা গিয়েছে, আমফান দরুন ধানের ক্ষয়ক্ষতি খুব একটা বেশি না হলেও ক্ষতি হয়েছে সবজির। দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় ক্ষয়ক্ষতি সব থেকে বেশি হয়েছে। তারপরেই রয়েছে নদিয়া, মুর্শিদাবাদ, পূর্ব বর্ধমান ও পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা। সব মিলিয়ে আম্ফানের দরুন রাজ্যে প্রায় ১০ লক্ষ হেক্টর জমির সবজি নষ্ট হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে চাষীদের নানা সময়েই ধানের পাশাপাশি সবজি চাষেও উৎসাহ দিয়েছে। চাষীদের উৎপাদিত সামগ্রী যাতে বাজারে ভালো দামে বিক্রি করার সুযোগ হয় তার জন্য জায়গায় জায়গায় কিষাণ মান্ডিও তৈরি করে দিয়েছেন। তারই দৌলতে রাজ্যে সবজি চাষের পরিমাণও ব্যাপক হারে বেড়েছে। আমফানের ফলায় বিদ্ধ সবজি চাষীরা  ক্ষতিগ্রস্ত চাষীর সংখ্যা প্রায় ২১ লক্ষ।

আরও পড়ুন: সবসময় অস্ত্র হাতে তুলেই সমস্ত বিবাদ মেটানো যায় না, ভারত-চিন নিয়ে মুখ খুললেন রাজনাথ

রাজ্য সরকার যেমন এই সবজি চাষীদের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছে ঠিক তেমনি এবার রাজ্যের সব সবজি চাষীদের বিমার আওতায় নিয়ে আসার সিদ্ধান্তও নিয়েছে। নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে রাজ্য সরকারের সঙ্গে এগ্রিকালচারাল ইনসিওরেন্স কোম্পানির প্রাথমিক কথাবার্তা হয়েছে। সব কিছু ঠিক থাকলে হয়তো চলতি বছরের পুজোর পরেই রাজ্যের সবজি চাষীদের বিমার আওতায় নিয়ে আসতে এই সংস্থার সঙ্গেই গাঁটছাড়া বাঁধতে চলেছে রাজ্য সরকার।

Related Articles

Back to top button
Close