fbpx
কলকাতাহেডলাইন

লক্ষ্য একুশ, জনসংযোগে চালু হল ‘সোজা বাংলায় বলছি’ ভিডিও সিরিজ  

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: কেন্দ্রীয় সংস্থার সমীক্ষার ভিত্তিতে বাংলায় বেকরত্ব কম। দাবি করলেন তৃণমূল রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়ান। রবিবার সোশাল মিডিয়ায় এক ভিডিও প্রকাশ করে এমনটাই দাবি জানলেন ডেরেক। তিনি বলেন ‘অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় বাংলার বেকারত্বের হার কম। আমি বলছি না, সিএমআইই-র তথ্য বলছে।’
এদিন একুশের নির্বাচনের লড়াইকে সামনে রেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় নতুন প্রচারাভিযান শুরু করল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। মূলত বাঙালি সেন্টিমেন্টকে উসকে দিতে তৃণমূলের রাজ্যসভার দলনেতা ডেরেক ও’ব্রায়েনের মস্তিস্কপ্রসূত এই কর্মসূচিটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘সোজা বাংলায় বলছি’। এই কর্মসূচির মাধ্যমে লাগাতার প্রচার অভিযান চালানো হবে। রাজ্যের বর্তমান শাসক দলের সর্ব প্রকারের উন্নয়ন মুলক কাজ এই কর্মসূচির মাধ্যমে মানুষের কাছে তুলে ধরা হবে। প্রথম দিনের প্রথম পর্বে অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় বাংলার কর্মসংস্থানের তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরা হয়। পাশাপাশি এই ভিডিওগুলিতে দেখানো হবে সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে গত ন’বছরে বাংলার কতটা অগ্রগতি হয়েছে। এছাড়াও বিজেপির শাসনে দেশের যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো কীভাবে ‘আক্রান্ত’ হচ্ছে এবং রাজ্যগুলিকে কীভাবে ‘বঞ্চনার শিকার’ হতে হচ্ছে সেটাও তুলে ধরা হবে আগামী দিনে। তৃণমূলের দাবি, তাঁদের এই প্রচারপর্বে যে ভিডিওগুলি প্রকাশ করা হবে, তাতে কোনও ফাঁকা আওয়াজ বা, গালভরা গল্প থাকবে না। শুধুই বাস্তব থাকবে।
‘সোজা বাংলায় বলছি’ ভিডিও সিরিজের প্রথম পর্বে তৃণমূলের রাজ্যসভার দলনেতা সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকনমি-র প্রকাশিত তথ্যকে হাতিয়ার করে ডেরেক ও’ ব্রায়েন বললেন, ‘গত জুন মাসে ভারতে বেকারত্বের হার ছিল ১১ শতাংশ। যেখানে হরিয়ানায় বেকারত্বের হার ছিল ৩৩ শতাংশ। উত্তরপ্রদেশে ৯.৬ শতাংশ, কর্ণাটক ৯.২ শতাংশ, মধ্যপ্রদেশ ৮.২ শতাংশ, সেখানে বাংলায় বেকারত্বের হার ছিল ৬.৫ শতাংশ।’ আম বাঙালির কাছে ডেরেক আবেদন করেন, ‘ভোট দেওয়ার আগে একটু ভেবে দেখুন।’
প্রসঙ্গত, করোনা আবহে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য বিধি উলংঘন করে, মিটিং-মিছিল করে জনমত গঠন করা সম্ভব নয়। তাই তৃণমূল এবং বিজেপি দুই শিবিরই এখন ভারচুয়াল প্রচারকে হাতিয়ার করে মানুষের দরবারে পৌছাতে চাইছেন। বিজেপি অনেক আগে থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে বেশ কয়েকটি বড় বড়  ভারচুয়াল জনসভা সেরে ফেলেছে। সম্প্রতি ২১ জুলাইয়ের গুরুত্বপূর্ণ শহীদ দিবসের সভাকে ও ভার্চুয়াল করা হয়।
শহিদ সমাবেশে মমতাকে বলতে শোনা গিয়েছে, ‘বহিরাগতরা বাংলা শাসন করবে না।’ অর্থাৎ পুরদস্তুর বাঙালি আবেগ উসকে দিতে চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই আবেগ কে নতুন করে উসকে দিতে এবার শুরু হল তৃণমূলের ‘সোজা বাংলায় বলছি’ কর্মসূচি।

Related Articles

Back to top button
Close