fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

ব্রিটেনের কোর্টেও টেকেনি ধোপ, যে কোনও সময় ভারতে ফিরিয়ে নিয়ে আনা হতে পারে বিজয় মালিয়াকে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সম্প্রতি প্রত্যর্পণের বিরুদ্ধে লন্ডনের হাইকোর্টে গিয়েছিলেন বিজয় মালিয়া। কিন্তু, তাঁর আবেদন খারিজ করে দিল আদালত। ২০১৮ সালে তাঁকে ভারতে প্রত্যর্পণের নির্দেশ দেয় সেখানকার এক নিম্ন আদালত। তাঁকে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচার প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য সেদেশের সরকারের কাছে প্রত্যর্পণের আবেদন জানায় সিবিআই ও ইডি। সেই শুনানিতে বিজয় মালিয়াকে প্রত্যর্পণের নির্দেশ দেয় নিম্ন আদালত।

এবার ভারতে বিজকে ফিরিয়ে আনার ব্যপারে সব সরকারি কাজকর্মও শেষ হয়েছে। এবার যেকোনও সময় কিংফিশার কর্ণধারকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারবে ভারত। এদিকে ঋণের ১০০ শতাংশই ভারত সরকারকে ফিরিয়ে দিতে চাইছেন বিজয় মালিয়া। পরিবর্তে তাঁর বিরুদ্ধে চলা মামলা বন্ধ করা হোক। কয়েকদিন আগেই কেন্দ্রের কাছে এই আবেদনই করলেন ‘পলাতক’ বিজয় মালিয়া।

আরও পড়ুন: বুধবার পেট্রাপোল বন্দর পরিদর্শনে এলেন আইজি দেবাশীষ গড়াল

কিংফিশার এয়ারলাইন্সের নামে বিভিন্ন ব্যাঙ্ক থেকে প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকার ঋণ নিয়েছিলেন তিনি। এরপর তা শোধ করতে না পেরে বিদেশে পালিয়ে যান সংস্থার তৎকালীন কর্ণধার বিজয় মালিয়া।

কয়েকদিন আগে টুইটারে বিজয় মালিয়া লিখেছিলেন, ‘ভারতীয় ব্যাঙ্কগুলি টাকা ফেরত পেতে ইচ্ছুক নয়। ইডি-ও কথা শুনছে না। এখন ভরসা অর্থ মন্ত্রক।’ এরপর ফের করোনা আবহে আত্মনির্ভর ভারত গড়ার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী মোদীর ভাষণের পর টাকা ফেরানোর আবেদন করেন বিজয়।

তিনি টুইটে লেখেন, ‘করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্র যে আর্থিক প্যাকেজ গ্রহণ করেছে, তার জন্য কেন্দ্রকে অভিনন্দন জানাই। সরকার যত খুশি টাকা ছাপাতে পারে। কিন্তু আমি যে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলি থেকে নেওয়া ঋণের ১০০ শতাংশ ফেরত দিতে চেয়েছি, তা কেন বার বার অবহেলা করা হচ্ছে?’ টুইটে তিনি আরও লেখেন, ‘নিঃশর্তভাবে এই ঋণের টাকা ফেরত নেওয়া হোক এবং এই মামলা বন্ধ করা হোক।’

Related Articles

Back to top button
Close