fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনায় মৃতদেহ সৎকারের জন্য সরকারের চুল্লি করার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভ

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাট: করোনা আক্রান্ত নিয়ে গ্রামবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক রয়েছেে। গ্রামবাসীদের আবার নতুন করে আতঙ্কগ্রস্ত করে তুলল করোনা আক্রান্ত মৃতদেহ সৎকার করার জন্য সরকারের চুল্লি করার সিদ্ধান্তে। সরকারিভাবে এই সিদ্ধান্ত নিলেও এর প্রতিবাদে গ্রামবাসীরা অবস্থান বিক্ষোভে শামিল হল বৃহস্পতিবার। ঘটনাটি কোলাঘাট ব্লকের সিদ্ধা ২ নম্বর অঞ্চলের অন্তর্গত বলিশ্বর গ্রামের ১৪ নম্বর পুলে ছ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে। সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে আতঙ্কিত গ্রামবাসীরা।

পাঁশকুড়া ও কোলাঘাট এলাকায় যারা করোনা আক্রান্তে মারা যাবে তাদেরকে এই স্থানে দাহ করা হবে। সেইমতো বেশ কয়েক দিন আগে ওই স্থানে এসে বেশ কয়েকজন শ্রমিক গাছ কাটতে শুরু করে। গ্রামবাসীদের সন্দেহ হয়। গ্রামবাসীরা এসে গাছ কাটা বন্ধ রাখতে বলে। গ্রামবাসীদের চাপের মুখে গাছ কাটা বন্ধ করে চলে যায় কর্মরত শ্রমিকরা। ওই স্থানে চুল্লি করা যাবে না এই সিদ্ধান্ত মোতাবেক আশপাশের গ্রামবাসীরা ওই স্থানে প্রতিবাদ মঞ্চে গড়ে দাবি জানাতে থাকে সরকারের এই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হোক। প্রতিবাদ মঞ্চে প্রশাসনিক কর্মকর্তারা এলে আন্দোলনরত গ্রামবাসীদের কাছে জানতে চায় আর কোনো কর্মসূচি আছে কিনা।

গ্রামবাসীরা তখন বলেন, সরকারের এই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন না করা হলে আগামী দিনে তারা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে যাবে। গ্রামবাসীদের পক্ষে শিবু প্রামানিক, সুপ্রিয়া মাইতি, বিপ্লব দিন্ডা বলেন, এলাকার মানুষের সঙ্গে কথা না বলেই সরকার একতরফাভাবে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে আমরা তার প্রতিবাদ জানাই। তারা বলেন এই স্থান ছাড়া সরকারের অনেক পতিত জমি পড়ে আছে সেই স্থানে চুল্লি করা হোক। যে স্থানে চুল্লি করার কথা সরকার চিন্তাভাবনা করেছে সেই স্থানের পাসে চাষযোগ্য জমি আছে। মহিলারা ফুল বাগানে ফুল তুলতে আসে, সামনেই একটি আদিবাসী পাড়া রয়েছে, ঢিল ছোড়া দূরত্বে ধুলিয়ারা কলিশ্বর গ্রাম রয়েছে। এমনিতেই একটা আতঙ্ক কাজ করছে করোনা নিয়ে তারপর এই চুল্লি হলে মানুষ আরো আতঙ্ক হয়ে পড়বে।
সিদ্ধা দুই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অরুণ হাজরা বলেন ওই স্থানে প্রশাসনিক কর্তা ব্যক্তিরা এসেছিলেন চুল্লি করার ব্যাপারে। এনিয়ে গ্রামবাসীদের মধ্যে একটা মতান্তর তৈরি হয়েছে। শুক্রবার রাজনৈতিক প্রতিনিধিদের নিয়ে একটি বৈঠক ডাকা হয়েছে।

কোলঘাট ব্লকের বিডিও মদন মোহন মন্ডল কে ধরা হলে তিনি বলেন, ওই স্থানে চুল্লি হওয়ার কথা ছিল। প্রশাসনিক কর্তারা ওই স্থান পরিদর্শন করেছে।গ্রামবাসীরা প্রতিবাদ করেছে এও খবর এসেছে। কিভাবে এর সমাধান করা যায় সেই বিষয়টিও দেখা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

Related Articles

Back to top button
Close