fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রয়্যাল্টি ফাঁকি দিতে গ্রামের রাস্তা দিয়ে চলা ট্র্যাক্টর আটকে রেখে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: বালি ঘাট থেকে বালি তুলে নিয়ে যাবার আলাদা রাস্তা রয়েছে । তা সত্ত্বেও রয়্যাল্টি ফাঁকি দিতে বসতি এলাকার রাস্তা দিয়ে বোপরোয়া ভাবে যাতায়াত করছে বালি বোঝাই ট্র্যাক্টর । এই ঘটনা নিয়ে বুধবার ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় পূর্ব বর্ধমানের গলসি থানার বেতালবন গ্রামে।

 

 

গ্রামের রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে থাকা একাধীক বালি বোঝাই ট্র্যাক্টর আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখানো শুরু করেন উত্তেজিত গ্রামবাসীরারা। ঘটনার বিহিত চেয়ে তারা খবর দেন গলসি থানা ও গলসি ১নম্বর ব্লকের ভূমি ও ভূমি রাজস্ব আধিকারিকের দপ্তরে । যদিও প্রশাসনের কর্তারা বেতালবন গ্রামে পৌছানোর আগেই ট্র্যাক্টর মালিকরা সেখানে পৌছেযান । গ্রামের রাস্তা দিয়ে আর কোনদিন বালি বোঝাই ট্র্যাক্টর নিয়েযাওয়া হবেনা বলে ট্র্যাক্টর মালিকরা গ্রামবাসীদের প্রতিশ্রুতি দেন । এরপর ট্র্যাক্টর গুলি ছেড়ে দেন গ্রামবাসীরা ।

 

 

রয়্যাল্টি ফাঁকি দেওয়া বালির ট্র্যাক্টর যাতাযাত রুখতে এদিন একযোগে পথে নামেন বেতালবন ,লোয়াপুর, সন্তোষপুর সহ আরও কয়েকটি গ্রামের মানুষজন ।এলাকার বাসিন্দা সেখ সাইফুল, জাকির হোসেন মন্ডল, নিখিল বাগদি প্রমুখরা অভিযোগে বলেন ,বালি নিয়ে বালিঘাট থেকে যাবার অন্য রাস্তা রয়েছে । তবুও সরকারকে রয়্যাল্টি ফাঁকি দিতে প্রতিদিন ৩০-৪০ টি ট্রাক্টর বালি নিয়ে তাঁদের বসতি এলাকার রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করছে। তারজন্য গ্রামের রাস্তা দিয়ে সাধারণের যাতায়াত দুরহ হয়ে উটেছে । দুর্ঘটনা ঘটনার ভয়ে ছোট ছেলে মেয়েরা স্কুলে যেতেও ভয় পাচ্ছে । সেখ সাইফুল বলেন , বালি বোঝাই ট্র্যাক্টর বেপরোয়া ভাবে যাতায়াতের কারণে গ্রামের বিস্তির্ণ রাস্তার দুইপাশে ড্রেনে ফাটল দেখা দিয়েছে।বালির ট্র্যাক্টরের জন্য নিত্যদিন বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখিন হচ্ছেন গ্রামের সাধরন মানুষজন । বালি বোঝাই ট্র্যাক্টর গ্রামের কৃষকদের খামারেরও ক্ষতি করছে।

 

গ্রামবাসীরা বলেন , বালি কারবারীদের এমন সব কাজ কারবার বন্ধের দাবিতে এদিন তারা পথে নেমে ট্র্যাক্টর আটকে দিয়ে ছিলেন। ট্র্যাক্টর মালিকরা প্রতিশ্রুতি গ্রামের রাস্তা দিয়ে আর বালির ট্র্যাক্টর যাতায়াত করবে না । ফের যদি গ্রামের রাস্তা দিয়ে বালি বোঝাই ট্র্যাক্টর যাতায়াত করে তবে বৃহত্ত্বর আন্দোলন শুরু হবে বলে গ্রামবাসীরা এদিধ হুঁশিয়ারী দিয়েছেন ।

Related Articles

Back to top button
Close