fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সমব্যাথী প্রকল্পের টাকা না পেয়ে অঞ্চল প্রধানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ধরনায় বসল গ্রামবাসী

মিল্টন পাল, মালদা: সমব্যাথী প্রকল্পের টাকা না পেয়ে অঞ্চল প্রধানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে এবারে ইংরেজবাজার ব্লকের সামনে ধরনায় বসলেন কাজি গ্রাম অঞ্চলের বাসিন্দারা। সোমবার এই অঞ্চলের বাগবাড়ি ৫২ বিঘা সহ একাধিক এলাকার মহিলারা সমব্যাথী প্রকল্পের দুই হাজার টাকা করে না পেয়ে ব্লক দফতরের সামনে ধরনায় বসেন। ওইসব এলাকার মহিলাদের অভিযোগ কারও স্বামী এক বছর আবার কারও স্বামী ছ’মাস আগে মারা গেছে। কিন্তু সমব্যাথী প্রকল্পের টাকা এখনও পর্যন্ত পাননি। বারবার প্রশাসনকে জানিয়েও কোনও সুরাহা হয়নি। বাধ্য হয়ে টাকার দাবিতে ধরনায় বসেন মহিলা।

 

জানা গিয়েছে, রাজ্য সরকার মৃত্যুর পর সৎকার করার জন্য  ২০০০ টাকা ঘোষণা করে। এবার সেই টাকাও দিচ্ছে না প্রধান। যেখানে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন কেউ মারা গেলে প্রয়োজনীয় নথি নির্দিষ্ট এলাকার জনপ্রতিনিধির কাছে ফর্ম ফিলাপ করে দিলেই  ২০০০ টাকা পাওয়া যাবে। কিন্তু ইংরেজবাজার ব্লকের কাজিগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার প্রায় শতাধিক ওপরে মানুষের মৃত্যু হয়েছে। অথচ মৃত্যুর পর পর প্রয়োজনীয় নথি সহ কাগজ জমা দিলেও মিলছে না সেই টাকা। কারো বা পরিবারের সদস্যর মৃত্যু হওয়া ছ’মাস আবার কারও বা আট মাস পার হয়ে গিয়েছে। প্রধানের কাছে জানতে গেলে বলছে ফান্ডে টাকা নেই। টাকা আসলে সেই টাকা দিয়ে দেওয়া হবে।

 

এই নিয়ে স্থানীয় জন প্রতিনিধি ও প্রশাসনকে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। গ্রামের বাসিন্দা সোহাগি কর্মকার বলেন, ছ’মাস আগে তাঁর স্বামীর মৃত্যু হয়েছে। প্রধানকে প্রয়োজনীয় নথি দিলেও মিলছে না সমব্যাথি প্রকল্পের  ২০০০ টাকা। আমরা বারবার প্রধান মেম্বারের কাছে জানতে চাইছি অথচ সেই টাকার সদুত্তর দিতে পারছে না তারা। এই পরিস্থিতিতে আমরা কোথায় যাবো কি করবো বুঝতে পারছি না। তাই এদিন বাধ্য হয়ে তারা ব্লক দফতরের সামনে ধরনায় বসেছেন। টাকা না পেলে এই ধরনা চলতে থাকবে।

 

মালদা জেলা বিজেপির সহ সভাপতি অজয় গাঙ্গুলী বলেন, যারা শৌচাগার তৈরির টাকা লুঠপাট করে। গরিব মানুষের টাকা লুটে খায়। এমনকি মৃত্যুর পর যে টাকা দেওয়ার কথা সেটাও দিতে পারছে না। তাদের কাছে এর থেকে বেশি কী আশা করা যায়। ২০২১ সালে বিজেপি ক্ষমতায় আসলে এইসব দুর্নীতির তদন্ত হবে। দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের জেলে বাস করতে হবে। জেলা তৃণমূলের কো-অর্ডিনেটর দুলাল সরকার বলেন, বিজেপি উস্কানি দিয়ে গ্রামের মানুষকে ভুল বুঝিয়ে এই ধরনের মিথ্যে অপপ্রচার চালাচ্ছে। ২০২১-এ ক্ষমতায় আসার অলীক কল্পনার মতো হয়ে রয়েছে বিজেপি যা কখনোই সম্ভব নয়। তবে কোন প্রধানের বিরুদ্ধে যদি অভিযোগ থাকে প্রশাসন আছে তদন্ত হবে।

 

Related Articles

Back to top button
Close