fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

অবসরের পথে পুতিন? কার হাতে রাশিয়ার ভবিষ্যৎ?

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: আগামী বছরের শুরুতেই অবসর নিতে চলেছেন রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন? আগামী বছরের ২০২১ শুরুতেই রুশ রাষ্ট্রপতি পদ থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন এই বর্ষীয়ান রাষ্ট্রনেতা। মূলত শারীরিক অসুস্থতার কারণেই এমন সিদ্ধান্ত বলে জানা গিয়েছে। শুক্রবার পুতিনের অবসরের খবরটি সম্প্রচারিত হতেই ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে জল্পনা। তাহলে কি হতে চলেছে আগামী দিনের আন্তর্জাতিক রাজনীতির চালচিত্র? কেই বা হতে চলেছেন রাশিয়ার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট? সব নিয়েই জল্পনা রুশ ও আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক মহলে।

জানা গিয়েছে রুশ প্রেসিডেন্টের বান্ধবী আলিনা কাবাইভা ও তার দুই কন্যা সন্তানের আর্জিতেই এমন সিদ্ধান্ত প্রেসিডেন্টের। সূত্রের খবর সম্ভবত তিনি গত বেশ কিছুদিন ধরেই পারকিনসন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। তারপর থেকেই নানান শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন বিশ্বখ্যাত এর দাপুটে রাষ্ট্রনেতা। সম্প্রতি বেশকিছু ফটোগ্রাফি ভিডিওতে ধরা পড়েছিল তাহলেই সমস্যা। তারপর থেকেই জল্পনা শুরু হয় রাজনৈতিক মহলে।

একটি ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাশিয়ার রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের ভালেরি সলোভে জানিয়েছেন, শারীরিক অবস্থার কারণে পুতিনের বান্ধবী আলিনা ও তাঁর দুই মেয়ের চাপেই নিজের পথ থেকে সরে দাঁড়ানোর ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন পুতিন। পুতিনের জীবনে নিজের পরিবারের মধ্যে সম্পর্ক ও প্রভাব তাঁর যথেষ্ট হাওয়াই এর পেছনে অন্যতম কারণ বলে দাবি তাঁর। হয়তো, দীর্ঘ কুড়ি বছর ক্রেমলিনের ক্ষমতা নিজের হাতে রেখে অবশেষে  আগামী বছরের শুরুতে জানুয়ারিতেই নতুন কারও হাতে রাশিয়ার ক্ষমতা হস্তান্তরিত হতে চলেছে।

বিভিন্ন সূত্রে খবর বেশ কিছুদিন থেকেই পারকিনসন রোগে আক্রান্ত হয়ে ভুগছিলেন পুতিন। সম্প্রতি তার পায়ের অস্বাভাবিক নাড়াচাড়া স্নায়ু জনিত সমস্যা দেখা যায়। চা ধরা পড়েছে বিভিন্ন ফটোগ্রাফি ও ভিডিওতে।

উল্লেখ্য, মার্কিন নির্বাচনে পরাজিত হয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে ক্ষমতায় এখন আসছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। এমন অবস্থায় রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের পদত্যাগ আগামী দিনে মার্কিন সম্পর্কের বাতাবরণ কেমন ভাবে করে উঠবে তা দেখতে উৎসুক বিশেষজ্ঞ মহল।  ১৯৯৯ থেকে ২০২০ দীর্ঘ কুড়ি বছরের বেশি সময় প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্টের পদে রয়েছেন পুতিন। জানুয়ারিতেই হোয়াইট হাউসে পা রাখছেন বাইডেন। তার সঙ্গে পুতিনের অবসর গ্রহণ, রুশ-মার্কিন সম্পর্কের পাশাপাশি বিশ্ব রাজনীতিতে কতটা পরিবর্তন আনতে পারে তা দেখতে তীক্ষ্ণ নজর রাখছে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক মহল।

Related Articles

Back to top button
Close