fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ৪ রাজ্যে আগাম ভোট শুরু, এগিয়ে জো বাইডেন

ওয়াশিংটন, (সংবাদ সংস্থা): মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চারটি রাজ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগাম ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। শুক্রবার ভোট গ্রহণের প্রথম দিনেই মিনেসোটার পাশাপাশি ভার্জিনিয়া, সাউথ ডাকোটা ও ওয়াইয়োমিং রাজ্যের বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। জনমত সমীক্ষায় এখন পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে জয়ী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছেন ডেমোক্রেটিক প্রার্থী জো বাইডেন।

নভেম্বরের ৩ তারিখ যুক্তরাষ্ট্রের সব রাজ্যে একযোগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দেওয়ার তারিখ থাকলেও আগাম ভোটের সুবিধা থাকায় ৪ রাজ্যের নিবন্ধিত ভোটাররা মোটামুটি ৬ সপ্তাহ আগেই নিজের পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। তাই নয়, মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে এবছর আগাম ও ডাকযোগে তুলনামূলক বেশি ভোট পড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।
চার রাজ্যে আগাম ভোট শুরুর দিনই মিনেসোটায় নিজ নিজ প্রচারে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন প্রচারনা চালিয়েছেন, একে অপরের কড়া সমালোচনা করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতির ভয়াবহ দূরবস্থার জন্য ট্রাম্পকে দায়ী করে এদিন বাইডেন বলেছেন, “তিনি (মার্কিন প্রেসিডেন্ট) এমনকী দায়িত্ব পালনের অভিনয়টুকুও করছেন না।’ এরপর পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় হ্যাঙ্গারে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশে ট্রাম্প বলেন, “বাইডেন Radical left ‘রা জিতলে মিনেসোটা ধ্বংস হয়ে যাবে।” ট্রাম্পের একথা বলার পিছনে একটি ঘটনা সামনে এনেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

তারা জানাচ্ছেন, সম্প্রতি রাজ্যটির মিনিয়াপোলিসে পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গের নির্মম হত্যা ঘিরে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখা দেয়। পুরো দেশজুড়েই ছড়িয়ে পড়ে সে বিক্ষোভ। বিক্ষোভকারীদের প্রতি কঠোর অবস্থান নিয়েছিলেন ট্রাম্প। বিক্ষুব্ধদের উগ্র বামপন্থী আখ্যা দিয়ে শহরটিতে আইন ও শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তিনি। তাই, ‘বাইডেন জয়ী হলে ওইসব উগ্র-বামপন্থীরা আরও প্রশ্রয় পাবে’ বলে দাবি করেছেন ট্রাম্প।

আরও পড়ুন:পূর্ব রেলের লোকাল ট্রেনের ভোলবদল, মহিলা কামরায় থাকবে লুকনো ক্যামেরা

এদিকে, তথ্য বলছে ২০১৬ সালে ট্রাম্প তার তৎকালীন ডেমোক্রেটিক প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিনটনের কাছে মিনেসোটায় ১.৫ শতাংশ পয়েন্টে হেরেছিলেন। এবারও মিনেসোটায় সেই একই ধরা লক্ষ্য করা যাচ্ছে, জনমত সমীক্ষায় এগিয়ে আছেন বাইডেন। সমীক্ষা বিষয়ক ওয়েবসাইট রিয়েলক্লিয়ার পলিটিকস অনুসারে, শুক্রবার পর্যন্ত রাজ্যটিতে ট্রাম্পের চেয়ে গড়ে ১০.২ শতাংশ পয়েন্ট নিয়ে এগিয়ে আছেন তিনি। এগিয়ে থাকার কারণ হিসাবে- জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডকে সহিংসতার তীব্র সমালোচনা, বর্ণবৈষম্য ও পুলিশি নৃশংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীদের আন্দোলনের প্রতি বাইডেনের সমর্থনও কাজ করছে বলে অভিমত বিশ্লেষকদের।

Related Articles

Back to top button
Close