fbpx
আন্তর্জাতিকএকনজরে আজকের যুগশঙ্খহেডলাইন

ফের ছড়াচ্ছে যুদ্ধের উত্তাপ, নাগর্নো-কারাবাখ সংঘর্ষে খতম আজারবাইজানের ৪ সেনা

ইয়েরেভান: আবারও যুদ্ধের উত্তাপ ছড়াচ্ছে আজারবাইজান আর্মেনিয়ার মধ্যে। নাগর্নো-কারাবাখ অঞ্চলে আর্মেনীয় বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছে আজারবাইজানের ৪ সেনার। এমনটাই দাবি করেছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। পালটা আর্মেনীয় মদতপুষ্ট কারাবাখ বাহিনীর দাবি, শনিবার থেকে চলা সংঘর্ষে আজারবাইজানের সেনার হামলায় তাদের ছ’জন সেনা আহত হয়েছে।

বিতর্কিত নাগর্নো-কারাবাখ অঞ্চলের দখল নিয়ে প্রায় দুমাস চলা সংঘর্ষের পর গত নভেম্বরে মাসে সংঘর্ষবিরতি চুক্তি স্বাক্ষর আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান। রাশিয়ার মধ্যস্থতায় স্বাক্ষরিত এই চুক্তির ফলে কাজবাজার গ্রাম সহ নিজেদের দখলে থাকা বেশ কিছু এলাকা আজারবাইজানের হাতে তুলে দেয় আর্মেনিয়া। পাশাপাশি, দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ থামাতে কারাবাখ অঞ্চলে দু’হাজার জওয়ানের একটি শক্তিশালী বাহিনীও মোতায়েন করে মস্কো। কিন্তু শনিবার, ফের সংঘর্ষে জড়ায় দুই ফৌজ। উদ্বেগ উসকে সংঘর্ষবিরতির কথা জানায় রাশিয়াও। দুই পক্ষের কাছেই চুক্তি মেনে চলার আবেদন জানিয়েছে পুতিন প্রশাসন।

আর্মেনিয়ার সেনাবাহিনীর দাবি, স্বঘোষিত স্বাধীন রাষ্ট্র কারাভাখের সেনাবাহিনীর দখলে থাকা দু’টি গ্রামে শনিবার হামলা চালায় আজারবাইজানের সেনাবাহিনী। ইয়েরেভান আরও জানায়, বিতর্কিত এলাকা দুটি গ্রাম আজারবাইজানের সেনাবাহিনীর হামলা রুখ্যে দিয়েছে ফৌজ।

আরও পড়ুন: এবার করোনা চিকিৎসায় আয়ুষ বা হোমিওপ্যাথি ওষুধ নয়, স্পষ্ট জানাল সুপ্রিম কোর্ট

আর্মেনিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে জারি করা এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে রাশিয়ার মধ্যস্থতায় আজারবাইজান বাহিনী সঙ্গে আলোচনা চালানো হচ্ছে।

এদিকে, ফ্রান্স ও আমেরিকার নেতৃত্বে মিন্সক গ্রুপের বৈঠকে আর্মেনিয়াকে হুঁশিয়ারি দিয়ে আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ বলেন, আবার লড়াই শুরু করলে আর্মেনিয়াকে ধবংস করে দেব।

উল্লেখ্যে, ৪৪০০ বর্গকিলোমিটারের বিতর্কিত নাগর্নো কারাবাথ অঞ্চলটি আজারবাইজানের ভৌগলিক সীমানার মধ্যেও হলেও আর্মেনীয় বিরোধীদের দখলে। এই অঞ্চলে দখল নিয়ে আর্মেনিয়া আজারবাইজান মতবিরোধের সূচনা ১৯৮৮ সালে।

১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর সদ্য স্বাধীন দুই দেশের মতবিরোধ গড়ায় সামরিক সংঘাতে।

Related Articles

Back to top button
Close