fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

গ্রামে গ্রামে তরমুজ বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন গাড়িচালক তাপস  

ময়নাগুড়ি : কোভিভ-19 এর জেরে লকডাউন বহু মানুষের পেশা বদলে দিয়েছে তাতে সন্দেহ নেই । তবে অনেক মানুষ পেটের টানে পেশা বদল করতে বাধ্য হয়েছেন । আর তার এক জ্বলন্ত উদাহরণ ময়নাগুড়ির রেলগেটের তাপস রায় ।

দীর্ঘ বছর ধরে তাপস রায় গাড়ি চালানোর পেশার সঙ্গে যুক্ত । লকডাউন এর আগে পর্যন্ত লোনে নেওয়া ছোট চার চাকার গাড়ি চালিয়ে সংসার চালাচ্ছিলেন তিনি । বৃদ্ধ মা , স্ত্রী ও এক দুধের শিশুসহ তার চার সদস্যের পরিবার। গাড়ি চালানোর পেশা তার পরিবার পরিচালনার জন্য আয়ের একমাত্র উৎস । কিন্তু লকডাউন তার পেশার উপর চরম আঘাত হানে । যার ফলে তার সংসার খরচ জোটানো অনিশ্চিত হয়ে পড়ে ।

শুধুমাত্র সরকারি রেশন ও হাতে থাকা সামান্য টাকা দিয়ে দীর্ঘদিনের লকডাউন কাটবেনা বুঝতে দেরি হয়নি তাপসের । তাই বাধ্য হয়ে তাকে বেছে নিতে হয় অন্য পেশা । বিভিন্ন জায়গার চাষিদের ক্ষেত থেকে পাইকারি দরে তরমুজ কিনে ময়নাগুড়ি ব্লকের বিভিন্ন গ্রাম্য এলাকায় টোটোতে ঘুরে বিক্রি করছেন তিনি সেই তরমুজ। সারাদিন ঘুরে বেচা বিক্রি করে যা আয় হচ্ছে তাতে কোনো রকমে সংসার চলছে তার । কিন্তু কতদিন এইভাবে চলবে ?-সেই প্রশ্নের উত্তর নেই তার কাছে।

লকডাউন এর সময়সীমা আরও বেড়ে গেলে তরমুজ বিক্রি ছেড়ে হয়তো অন্য কিছু কাজ করতেও হতে পারে। লকডাউনের শেষে জমে থাকা গাড়ির কিস্তি কিভাবে পরিশোধ হবে তা নিয়েও দুশ্চিন্তিত সে । তাপসবাবু বলেন, ‘পেটের টানে বাধ্য হয়েই এই পেশা বেছে নিতে হয়েছে । সারাদিন ঘুরে যে সামান্য আয় হয় তাতে কোনওরকমে পরিবারের মুখে দু’বেলা দুমুঠো অন্ন তুলে দিচ্ছি ।’

Related Articles

Back to top button
Close