fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

“আপনাদের জন্য ‘রেড কার্পেট’ পাতা আছে”, বিশ্বের দরবারে ‘আত্মনির্ভরতা’-র ব্যাখ্যা দিলেন মোদি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  করোনার এই কঠিন পরিস্থিতিতে আত্মনির্ভরতা ও দেশের বাণিজ্যের পরিকাঠামো নিয়ে বিশ্ববাসীকে বার্তা দিলেন প্রধাননমন্ত্রী। লন্ডনের এই ভিডিও সম্মেলনে অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। করোনার আবহে বারবার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিতে দেখা গিয়েছে প্রধানমন্ত্রীকে। বেজিং একের পর এক দেশের সঙ্গে যে কূটনৈতিক টানাপড়েনে জড়িয়ে পড়েছে, সেটাও চিনের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ কমাচ্ছে। সেই ইস্যুকে হাতিয়ার করে এবার আসরে নামলেন মোদি। বৃহস্পতিবার করোনা পরিস্থিতিতে প্রথমবার বিশ্ববাসীর সামনে নিজের বক্তব্য তুলে ধরলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আজ ইন্ডিয়া গ্লোবাল উইক ২০২০ ডিজিটাল সামিটের সূচনা মঞ্চে বিশ্বের বড় বড় সংস্থাকে এদেশে বিনিয়োগ করতে আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী। সেই সঙ্গে জানিয়ে দিলেন বিদেশি সংস্থাগুলি ভারতে বিনিয়োগ করতে এলে তাঁদের সবরকম সুবিধা দেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কথায়, “এই কঠিন পরিস্থিতিতেও ভারতীয় অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে।” আন্তর্জাতিক মঞ্চ থেকে ভারতকে বিনিয়োগের সবচেয়ে নিরাপদ অঞ্চল বলে পরিচিত করার সুযোগটি হাতছাড়া করেননি প্রধানমন্ত্রী। দেশকে গত কয়েক দশকের শ্রেষ্ঠ উদার অর্থনীতির আখড়া বলে তুলে ধরেন তিনি। মোদির কথায়, “কর ব্যবস্থা সংস্কার, নানা আর্থিক প্রকল্পে, গৃহনির্মাণে গত কয়েক বছরে নজির সৃষ্টি করেছে ভারত। এই দেশ সংস্কার করছে, প্রদর্শন করছে, এবং নিজেকে দ্রুত বদলাচ্ছে।” বিশ্বকে মোদির বার্তা-আপনার জন্য অপেক্ষমান ভারত।”

বিশ্বের দরবারে আত্মনির্ভরতার ব্যখ্যা ছিল এদিন প্রধানমন্ত্রীর মূল আকর্ষণ। কোভিড পরিস্থিতিতে গোটা পৃথিবীকে স্বাগত জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আত্মনির্ভরতা মানে, ভারত নিজেরটুকু নিয়েই থাকবে এমন নয়, ভারত স্ব-উৎপাদনশীল, একক ভাবেই লড়তে সক্ষম।” ইন্ডিয়া গ্লোবাল উইক ২০২০’র মঞ্চে বিশ্বের বিজনেস টাইকুনদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বললেন,”ভারত এক্ষণ বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুক্ত অর্থনীতির মধ্যে একটা। আমরা বহুজাতিক সংস্থাগুলির জন্য রেড কার্পেট পেতে দিচ্ছি। আপনারা আসুন, এবং ভারতে বিনিয়োগ করুন। ভারত যে পরিমাণ সুবিধা আপনাদের দেবে, বিশ্বের খুব কম দেশই তা দিতে পারবে।”প্রধানমন্ত্রী বললেন, “যদি বলা হয় লড়াই করে পুনরুদ্ধার করার কথা, তা সে পরিবেশই হোক, আর অর্থনীতিই হোক। ভারতীয়দের সেই ইচ্ছাশক্তি আছে। ভারত অসম্ভবকে সম্ভব করার ক্ষমতা রাখে।”

আরও পড়ুন: সীমান্ত দ্বন্দ্ব, চিনের কাছে বড়সড় তুরুপের তাস হয়ে রয়েছেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী

একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী এদিন দাবি করেছেন। করোনার টিকা উৎপাদনেও ভারত অগ্রণী ভূমিকা নেবে। তিনি বলেন,”বিশ্বের দুই তৃতীয়াংশ টিকার চাহিদা পূরণ করে ভারতীয় সংস্থাগুলি। আমি নিশ্চিত করোনার টিকা আবিষ্কার হলে, এটার উৎপাদনেও আমরা অগ্রণী ভূমিকা নেব।”

‘ইন্ডিয়া গ্লোবাল উইক -২০২০’ শীর্ষক তিন দিনের এই গ্লোবাল কনফারেন্সে ৩০টি দেশ থেকে মোট ৫০০০ জন অতিথি নিজেদের বক্তব্য তুলে ধরবেন। প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে দেখা যাবে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, রেলমন্ত্রী পীযুষ গয়ালকে। থাকছেন ঈশা ফাউন্ডেশানের রূপকার সদগুরু-সহ আরও বেশ কিছু হেভিওয়েট ব্যক্তিত্বও।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close