fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাংলাকে গুজরাট বানাবই, মমতাকে হুঙ্কার দিলীপের

জাহির হোসেন, বারাসত: দিদির রাজ্যে শুধুই নৈরাজ্য। না আছে শিল্প, না আছে চাকরি। বেকার যুবকদের তাই কাজের খোঁজে গুজরাট পাড়ি দিতে হয়। সোমবার বারাসতে এই অভিযোগে সুর চড়ালেন দিলীপ ঘোষ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তাঁর হুঙ্কার, ‘একুশে ক্ষমতায় এলে এই নৈরাজ্যের অবসান ঘটবে।বাংলাকে গুজরাট বানাবই’।

এদিন কাছারি মোড়ে বিজেপি সভাপতি বলেন, ‘দিদিমণি মাঝেমাঝেই অভিযোগ করেন, বাংলাকে গুজরাট বানানোর চেষ্টা হচ্ছে। আমি বলছি, একশোবার বাংলাকে গুজরাট বানানোর চেষ্টা করব। তাহলে আর বাংলার তরুণদের পরিযায়ীদের শ্রমিক হয়ে গুজরাট যেতে হবে না’। তাঁর অভিযোগ, বছর বছর ঘটা করে দিদির সরকার শিল্প সম্মেলন করলেও আদতে কলসি ফাঁকা। এপর্যন্ত কোনও নতুন বিনিয়োগ নেই রাজ্যে। নতুন শিল্প হয়নি।

দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, বাংলাকে থেকে একজনও আইএস, আইপিএস বেরোচ্ছে না। বাম আমলে থেকেই পড়াশোনার বারোটা বেজেছে, দিদির আমলে হাল আরও খারাপ হয়েছে। বাংলার তরুণরা এখন ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার হচ্ছেন না, পরিযায়ী শ্রমিক হচ্ছেন। সামান্য যা কিছু উন্নয়ন হচ্ছে, সবই দিদির ভাই, তৃণমূলের কাউন্সিলার, পঞ্চায়েত সদস্যদের।

রাজ্যে অপশাসনের অভিযোগ তুলে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘বাংলাজুড়ে দাঙ্গার রাজনীতি করছে তৃণমূল। বাদুড়িয়া, বসিরহাট, কালিয়াচক, আসানসোল, ধূলাগড়, রানিগঞ্জ সর্বত্র সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা ঘটেছে। রাজ্যজুড়ে বোমা-বন্দুকের কারখানা হচ্ছে। বাংলায় সিমি, আলকায়দা, জামাতের মতো জঙ্গি সংগঠন ঘাঁটি গাড়ছে। মুর্শিদাবাদেও প্রচুর জঙ্গি তৈরি হচ্ছে। আর এসবই হচ্ছে দিদির আঁচলের তলায়। তিনি কোনও ব্যবস্থাই নিচ্ছেন না। সারা দেশের কোথাও অশান্তি নেই, অশান্তি শুধু বাংলায়’। দিলীপের আশ্বাস, ‘কাশ্মীরের শান্ত হয়েছে, বিজেপি ক্ষমতায় এলেও বাংলায় শান্ত হবে’।

উদ্বাস্তু অধ্যুষিত উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় দাঁড়িয়ে এদিন ফের এনআরসি রুপায়ণে আশ্বাস দেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি। তাঁর প্রশ্ন, ভাষণ ছাড়া এতদিন মতুয়াদের কে কী দিয়েছে? বলেন, গত ৭৫ বছরে কেউ মতুয়াদের নাগরিকত্ব নিয়ে ভাবেনি। কিন্তু মতুয়াদের নাগরিকত্ব দিতে বিজেপি আইন করেছে। বিজেপি তাঁদের নাগরিত্ব দেবে। ঠিক সময়ে নাগরিকত্ব পাবেন মতুয়ারা’। এরপরই তাঁর ইঙ্গিতপূর্ণ দেবে। ঠিক সময়ে নাগরিকত্ব পাবেন মতুয়ার’। এরপরই তাঁর ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য, ‘মোদি হ্যায় তো সব মুমকিন হ্যায়’।

আরও পড়ুন: বাল ঠাকুরের মৃত্যু দিবসে হুগলি জেলা জুড়ে শিবসেনা হিন্দুত্বের প্রসার ও প্রচার

দিলীপ ঘোষ এদিন একহাত নিয়েছেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকেরও। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি জ্যোতিপ্রিয়র খাসতালুক বারাসতে দাঁড়িয়ে খোলা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন রাজ্য সভাপতি। তিনি বলেন, ‘জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক সেখানে দাঁড়াবেন সেখানেই হারবেন। এখন উনিই ঠিক করুন কোন আসনে দাঁড়িয়ে হারাবেন’।

Related Articles

Back to top button
Close