fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

‘বাংলাকে আমরা কখনই গুজরাট হতে দেব না,’… দিলীপ ঘোষকে আক্রমণ জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের

শ্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: “যেখানে দিলীপ ঘোষ দাঁড়াবে ২৪ এর লোকসভা ভোটে, সেখানেই হারাবো এমনটাই চ্যালেঞ্জ করে বসলেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। একইসঙ্গে খাদ্যমন্ত্রী বলেন আমাকে হারিয়ে দেখাক, লড়াইটা হবে ২০২১ সালে বিধানসভা ভোটে।
মঙ্গলবার হাবড়ায় নিজের ৬৪ তম জন্মদিনের একটি অনুষ্ঠান থেকে এই ভাবে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে আক্রমণ করলেন রাজ্যের খাদ্যমমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক।

তিনি এদিব বলেন, ‘ বাংলার মানুষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চায়, কিছু গুজরাটি মানুষ এ রাজ্যে এসে কিছুই করতে পারবে না। মানুষই শেষ কথা বলে। ২০২১ সালে ২২০ উপরে সিট নিয়ে আমরাই ক্ষমতায় আসব’।

খাদ্যমন্ত্রী এদিন রাজ্যপালকে নিয়ে কটাক্ষ করে বলেন মানুষ বলছে, ‘রাজ্যপাল নয় উনি পঙ্গপাল। আমি সেটা বলব না। আমি বলব উনি বিজেপির পাল। রাজ্যপাল বিজেপির এজেন্সি নিয়ে একজন সভাপতিকে রাজ্যে বসিয়েছে’।

তৃণমূল দার্জিলিং কে সুইজারল্যান্ড বানাবে, আর কলকাতাকে লন্ডন বানাবেন বলেছিলেন। তার উত্তরে তিনি বলেন গুজরাটকে মানুষ চিনল কি করে গুজরাটে গেলে ব্রহ্মা বিষ্ণু কে দেখা যাবে? যা ভারতবর্ষের মানচিত্রে নেই সেখানে আছে ট্রেনে আগুন দেওয়া, কিছু মানুষকে আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া, যার জন্য গুজরাটকে মানুষ চেনে। গুজরাট থেকে যেসব বিজেপি নেতারা এ রাজ্যয আসছেন এদের হাতে পায়ে রক্ত মাখা, এরা রক্তাক্ত বিজেপি। এই বাংলা সোনার বাংলা, আমরা কখন গুজরাট হতে দেব না’।

সিএএ নিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘শান্তনু ঠাকুর লক্ষ লক্ষ মতুয়া ভাইদের ঠকিয়েছেন, মমতা ব্যানার্জি বলেছেন এ রাজ্যে কোনও এনআরসি সিএএ হতে দেব না। আমাদের সকলের কাছে নাগরিকত্বের প্রমাণ রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তারাই প্রমাণ দিক তাদের কাছে কী নাগরিকত্বের প্রমাণ আছে’।

আরও পড়ুন: গঙ্গাসাগর মেলা নিয়ে বৃহস্পতিবার বৈঠক নবান্নে

প্রশান্ত কিশোরকে নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা কেউ তার ওপর আস্থা হারাইনি শুধু মিডিয়াই আস্তা হারাচ্ছেন আমাদের দল মিডিয়া দ্বারা পরিচালিত নয়। ২০১৬ সালে আমাদের বিরোধী ছিল মিডিয়া, তবুও মমতা ব্যানার্জি জিতিয়ে দেখিয়েছে। মমতা ব্যানার্জির বিকল্প ভারতবর্ষে নেই’।

Related Articles

Back to top button
Close