fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

কার্টুন বিতর্কের আঁচ কলকাতাতেও, ফ্রান্সের বিরুদ্ধে মোদির বিবৃতি দাবি ইসলামিক সংগঠনের

মোকতার হোসেন মন্ডল: ফ্রান্সে নবী মুহাম্মদ (স:) এর কার্টুন অঙ্কনের বিরুদ্ধে বুধবার কলকাতার ধর্মতলায় বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে মুসলিমরা। ওই বিক্ষোভ থেকে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যেন বিবৃতি দেন এমন দাবিও ওঠে। টিপু সুলতান মসজিদের রাস্তায় বিপুল সংখ্যক মুসলিম জড়ো হয়ে ফ্রান্সের দূতাবাসমূখী যেতে চাইলে পুলিশ অনুমতি দেয়নি। পুলিশি বাধার মুখে আন্দোলনকারীরা স্লোগান দিতে থাকে। এই সময় রাস্তায় বসে পড়েন অনেকে। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধেই বেশি ক্ষোভ দেখা যায়। অনেকে প্রেসিডেন্টের ছবির মুখে জুতো দিয়ে পেটাতে থাকে।

এদিনের বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করেছিলেন সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন। ওই সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন,”
সম্প্রতি ফ্রান্সে সংঘটিত আমাদের প্রাণপ্রিয় আদর্শ হযরত মুহাম্মদের সা. চরিত্রের জন্য অবমাননাকর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন ও ফরাসি সরকার কর্তৃক তা সমর্থন এবং এই প্ররোচনায় বিভ্রান্ত হয়ে পথভ্রষ্ট কিছু যুবকের সন্ত্রাসী আক্রমণের কঠোর ভাষায় তীব্র নিন্দা করছি।

সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডকে কোনো যুক্তিতে ও অজুহাতে আমরা সমর্থন করিনা। সব সহিংসতা সন্ত্রাস। সহিংসতা মুসলিম করলে সন্ত্রাস আর অমুসলিম করলে বন্দুকবাজ! অশ্বেতাঙ্গরা করলে সন্ত্রাস আর শ্বেতাঙ্গরা করলে উগ্র জাতীয়তাবাদী দ্বারা বিচ্ছিন্ন ঘটনা। বেসরকারি সংগঠন সহিংসতা করলে সন্ত্রাস আর সরকারি লাইসেন্স প্রাপ্ত বন্দুকবাজ করলে শান্তি প্রতিষ্ঠা হতে পারে না। আইনের অনুশাসন না মেনে প্রতিটি হত্যা সন্ত্রাস। সন্ত্রাসের সংজ্ঞা নির্দিষ্ট কোনো সরকার অথবা গণমাধ্যমের মালিক করতে পারে না। আমরা মনে করি, উগ্র জাতীয়তাবাদী হোক অথবা উগ্র মৌলবাদী সহিংসতা অপরকে সন্ত্রস্ত করতে করা হয়। প্রতিটি সহিংসতা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। আমরা প্রতিটি সহিংসতা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের নিন্দা করছি। ”
তিনি আরও বলেন,”যারা নিজেদের ধর্মাচরণের যৌক্তিকতা, ঐতিহাসিকতা ও সত্যতা বিচার করতে চায়না, তারা অপরের ধর্ম ও জীবন দর্শন বিচার করার কোনো নৈতিক অধিকার রাখে না।
আমরা সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ করব, অপরের ধর্ম ও জীবন দর্শনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন। শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য প্রয়োজন জাতীয় সংহতি ও আন্তর্জাতিক ঐক্য।”
এদিনের বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন,বিক্ষোভ সভায় বক্তব্য রাখেন সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মহঃ কামরুজ্জামান, সহ সভাপতি মাওঃ আনোয়ার হোসেন কাসেমী, জমিয়তে আহলে হাদিসের রাজ্য সম্পাদক আলমগীর সরদার, সমাজকর্মী কামরুদ্দিন মল্লিক, সিরাতের সম্পাদক আবু সিদ্দিক খান প্রমুখ।

Related Articles

Back to top button
Close