fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

স্বাস্থ্যকর্মীদের গাফিলতি, বিডিও, ওসির তৎপরতায় করোনা আক্রান্ত রোগী গেলেন হাসপাতালে

অসীম বেরা, চন্দ্রকোনা: স্বাস্থ্যকর্মীদের গাফিলতির চিত্র পশ্চিম মেদিনীপুরে। বিডিও, ওসির তৎপরতায় করোনা আক্রান্ত রোগী গেলেন হাসপাতালে।  রবিবার রঘুনাথপুর গ্রামের ৪৮ বছর বয়সী এক গ্রামীন চিকিৎসকের দেহে মেলে করোনা সংক্রমণ। দিন কয়েক ধরেই জ্বর, সর্দি কাশি নিয়ে অসুস্থ ছিলেন ওই চিকিৎসক। রবিবার রাতে করোনার রিপোর্ট আসার পরেই জ্ঞান হারান রঘুনাথপুরের এই করোনা আক্রান্ত চিকিৎসক। পরিবারের লোক হাসপাতালে যোগাযোগ করলে বলা হয় অ্যাম্বুলেন্স পাঠানো হচ্ছে। বারংবার ফোন করার পর প্রায় ৩ঘন্টা পরে  সরকারি অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছলেও ছিল না কোনও স্বাস্থ্য কর্মী।

[আরও পড়ুন- আমফান দুর্নীতিতে সরব হয়ে বিজেপির বাংলা বাঁচাও অভিযান]

ঘটনাস্থলে পৌঁছান চন্দ্রকোনা ২ নম্বর ব্লকের বিডিও স্বাশত প্রকাশ লাহিড়ী, ওসি প্রশান্ত পাঠক ও যুগ্ম বিডিও অভিজিৎ পড়িয়া। অ্যাম্বুলেন্সের ড্রাইভারকে রীতিমতো পিপিই কিট পরিয়ে শালবনি কোভিড হাসপাতালে পাঠান তাঁরা। বিষয়টি নিয়ে চন্দ্রকোনা বিডিও স্বাশত প্রকাশ লাহিড়ির দাবি, যদি মাঝ রাতে তাঁরা এগিয়ে না আসতেন তাহলে হয়তো বিনা চিকিৎসায় মারা যেতেন কোরোনা আক্রান্ত রোগী। মহামারীর শিকার এই রোগীকে বাঁচাতে তাঁরা সাধ্যমতো চেষ্টা করেছেন বলে দাবি করেন চন্দ্রকোনার বিডিওর। এই ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে এলাকায়। প্রশংসায় পঞ্চমুখ এলাকার বাসিন্দা থেকে জেলার বিভিন্ন মহল। করোনা যোদ্ধাদের আসল ভূমিকাটা কী এই ঘটনাই প্রমাণ, দাবি বিশেষজ্ঞ মহলের।

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close