fbpx
খেলাহেডলাইন

ডার্বি মহাযুদ্ধ নিয়ে কী বলছেন প্রাক্তন ফুটবলাররা? পড়ুন

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: মাঠে দর্শক প্রবেশের অনুমতি না থাকলেও প্রথমবার দর্শকশূন্য গ্যালারিতে চলেছে ভারতীয় ফুটবলের সব থেকে বড় মেগা শো ডার্বি। আর তা নিয়ে বক্তব্য রাখলেন প্রাক্তন ফুটবলাররা। দেখুন কী বলছেন তারা:

বাইচুং ভুটিয়া: আইএসএলের প্রথম ডার্বিতে আমি এটিকে মোহনবাগানকে এগিয়ে রাখব। প্রস্তুতির দিক থেকে ওরা এগিয়ে। কোচ হাবাস ভারতীয় ফুটবলে অনেকদিন ধরেই রয়েছেন। ভারতীয় এবং বিদেশি ফুটবলারদের সম্পর্কে ওনার স্পষ্ট ধারণা রয়েছে। তবে এসসি ইস্টবেঙ্গল যে খুব পিছিয়ে তা নয়। কারণ ওদের কোচ রবি ফাউলার তাঁর পরিচিত অভিজ্ঞ ফুটবলারদের নিয়ে দল করেছেন। ওরা ফাউলারের স্ট্র্যাটেজি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। ভারতীয় ফুটবলাররা কীভাবে মানিয়ে নিতে পারে সেটাই দেখার।

হোসে রামিরেজ ব্যারেটো: আইএসএলের প্রথম ডার্বি এটা। সমর্থকদের পাশাপাশি ক্লাবের কাছেও সমান গুরুত্বপূর্ণ। তবে এবার ফুটবলারদের ওপর চাপ অন্যবারের তুলনায় কম থাকবে। দ্বিতীয়বার বিষয়টা অন্যরকম হয়ে যাবে। মনে রাখতে হবে, সমর্থকরাই কিন্তু চাপের পরিবেশ তৈরি করে। আবার একজন ফুটবলারকে ভাল খেলতে উদ্বুদ্ধ করে। আর ফুটবলারদের পারফরম্যান্স তাদের ব্যক্তিত্বের উপর নির্ভর করে। দর্শকরাই বুঝিয়ে দেয় যে ম্যাচটার গুরুত্ব কতখানি। তবে যেহেতু কলকাতায় খেলা হচ্ছে না। দর্শক মাঠে থাকবে না বলে খোলা মনে ফুটবলাররা খেলতে পারবে।

বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্য: এটিকে মোহনবাগান দলের গভীরতা রয়েছে। হাবাস একটা বড় ফ্যাক্টর।  ইস্টবেঙ্গলের আছে অ্যান্থনি পিলকিংটন। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলেছে শুনেছি। খুব বুদ্ধিদীপ্ত ফুটবলার। ও এই ম্যাচে তফাৎ গড়ে দিতে পারে। তবে দুই কোচের কাছেই এটা প্রথম কলকাতা ডার্বি। তাই দুজনেই চাপে থাকবে। চাপ সামলে কে কতটা ভাল সিদ্ধান্ত নিতে পারে সেটা দেখতে হবে।

মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য: এসসি ইস্টবেঙ্গলের প্রথম ম্যাচ। ওরা নতুন দল। কিন্তু কেমন দল সেটা কেউ জানেনা। ওদের বিরুদ্ধে ম্যাচে নেমে সমস্যায় পরতে পারে। এটা এটিকে মোহনবাগানের কাছে মাইনাস পয়েন্ট।  তবে হাবাসের হাতে সেট টিম। প্রথম ম্যাচ জিতেছে। ম্যাচটা মনে হয়না একপেশে হবে। ফাউলার এই দলের বিদেশিদের নিজে বাছাই করেছেন। আইএসএলে তো যে দলে ভালো বিদেশি ফুটবলার আছে তারাই সাফল্য পাবে।

মানস ভট্টাচার্য: আজকের ডার্বিতে এটিকে মোহনবাগান হারলে অবাক হব। প্রথম ম্যাচ খেলে ফেলেছে। ছন্দে আছে। বরং ইস্টবেঙ্গলের পক্ষে প্রথম ম্যাচে বাজিমাত করাটা বেশ চাপের। তবে মাঘোমা, পিলকিংটন ভালো মানের ফুটবলার। পরিবেশের সঙ্গে দ্রুত মানিয়ে নিয়ে অঘটন ঘটিয়ে দিতে পারে। আবার শুরুতে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে গোল পেয়ে গেলে রক্ষণাত্মক হয়ে যায় হাবাস। এটা আমরা জানি। কিন্তু ফাউলারের স্টাইল আমাদের জানা নেই। ফুটবলার হিসেবে ভাল ছিলেন, তার মানে এই নয় যে কোচ হিসেবে ভাল হবে তবে মোহনবাগানের রয় কৃষ্ণা আর উইলিয়ামসের সঙ্গে লড়াই হবে স্কট নেভিল ও ড্যানি ফক্সের।

সুভাষ ভৌমিক: ফাউলার…. নিজেকে কোচ হিসাবে প্রমাণ করতে হবে। আমি মনে করি না যে সে কোনও বড় ট্রফি জিতেছে। তবে স্ট্রাইকার হিসাবে অন্যতম সেরা ছিলেন। নিজেকে প্রমাণ করতে তাঁকে ট্রফি জিততে হবে।

শঙ্করলাল চক্রবর্তী: ইস্টবেঙ্গলের উপর চাপ থাকবে না। ফাউলার বেশি দিন দল নিয়ে প্রস্তুতি নিতে পারেনি।   প্রত্যাশার চাপ নিতে হবে না। বিপক্ষের খেলা ইতিমধ্যে দেখে ফেলেছেন। এটিকে মোহনবাগানের শক্তি-দুর্বলতা তাঁর খাতায় লেখা হয়ে গেছে। এসসি ইস্টবেঙ্গলের নতুন সেট পিস কোচ এনেছে। এটা বড় ব্যাপার। ভারতীয় ফুটবলে এরকম দেখা যায়নি কিন্তু। সেট পিস বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে। আমার মনে হচ্ছে এসসি ইস্টবেঙ্গল এগিয়ে থাকবে।

ডার্বিকে ঘিরে চড়ছে উন্মাদনার ও উত্তেজনার পারদ। শুক্রবার আইএসএলের ইতিহাসে প্রথম ডার্বি। মুখোমুখি এসসি ইস্টবেঙ্গল ও এটিকে মোহনবাগান।

Related Articles

Back to top button
Close