fbpx
কলকাতাহেডলাইন

করোনা-আমফানের অর্থের প্রয়োজনে মুখ্যমন্ত্রী ছবি একে বিক্রি করছেন না কেন: রাহুল

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা-আমফানের বিপর্যয় সামলাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন ছবি একে অর্থ সংগ্রহ করছেন না? সোমবার এই প্রশ্ন করলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা। এদিন রাহুল সিনাহা বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অতীতে বলেছিলেন, তিনি নিজে ছবি একে সেই ছবি বিক্রির টাকায় তৃণমূল দল চালান। এখন করোনা এবং আমফানের ফলে বাংলাজুড়ে যে বিপর্যয় দেখা দিয়েছে, তা সামলাতে উনি নিজের আঁকা ছবি বিক্রি করতে পারেন। মুখ্যমন্ত্রীর ছবি লক্ষ লক্ষ টাকায় বিক্রি হয়। ব্যাপক চাহিদাও রয়েছে বলে জানি। এখন যদি উনি ছবি আঁকেন আর সেই সব ছবি বিক্রি করেন তাহলে কেন্দ্রের টাকার জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। ছবির বিক্রির টাকায় উনি ত্রাণের কাজ ও বিপর্যয় মোকাবিলা করতে পারবেন। যা দেশের মধ্যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পারে।’

রাহুলবাবু আরও বলেন, ‘আমার কাছে বিভিন্ন এলাকা থেকে ফোন আসছে। সাধারণ মানুষ প্রশ্ন করছেন, কেন্দ্রের হাজার কোটি টাকা দিয়ে কি তৃণমূলের ইলেকশন ফান্ড হবে নাকি সত্যি সত্যি তা দিয়ে সেবার কাজ হবে? এর সত্যিই কি কোনও উত্তর আছে?’ এদিন রাহুল সিনহা অভিযোগ করে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় মোদিজি যে টাকা দিয়েছিলেন, বাংলায় সেই টাকা লুট না হয়ে পাকা বাড়ি তৈরি হত, তাহলে গ্রাম বাংলায় এত ক্ষতি হত না।’

আরও পড়ুন: রাজ্যে প্রথম ভার্চুয়াল জনসভায় অমিত শাহ

তিনি বলেন, ‘আবাস যোজনার টাকা লুট না হলে বাংলায় পাঁচ শতাংশও মাটির ঘর থাকত না। সব পাকা বাড়ি হয়ে যেত। মানুষ গৃহহীন হতেন না আমফানের ঝড়ে। আজ যে বাড়িগুলো ভেঙেছে তার জন্য দায়ী প্রশাসন। দায়ি তৃণমূল সরকার। মোদিজি রেশনে চাল-গম পাঠানোর পরে তৃণমূল নেতারা যেমন খেয়ে নিয়েছেন। তেমনই প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় টাকা পাঠানোর পরেও কাটমানির কারণে এখানে বাড়ি তৈরি হয়নি সময় মতো। আমফানের ক্ষতির পরিমান বাড়ার পিছনে দায়ি তৃণমূলের টাকা খাওয়া, কাটমানি খাওয়া। কেন্দ্রীয় যোজনার টাকা বাংলায় নয়ছয় হয়েছে। সাধারণ মানুষের কাছে টাকা পেীঁছয়নি।’

Related Articles

Back to top button
Close