fbpx
দেশহেডলাইন

‘প্রধানমন্ত্রী নীরব কেন? লাদাখ নিয়ে মোদিকে নিশানা রাহুলের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: চিন ও ভারতীয় সেনাদের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা নিয়ে সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। রাহুলের প্রশ্ন, আমাদের সৈনিকদের হত্যা করার সাহস কীভাবে হয় চিনের সেনার? আমাদের ভূখণ্ড ছিনিয়ে নেওয়ার সাহস কীভাবে হয় তাদের? একইসঙ্গে এই কঠিন সময়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ‘নীরব’ কেন, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন রাহুল।

টুইটে রাহুল লেখেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নীরব কেন? তিনি লুকিয়ে আছেন কেন? যথেষ্ট হয়েছে, আসলে কী হয়েছে আমরা তা জানতে চাই। আমাদের সৈনিকদের হত্যা করার সাহস কীভাবে হয় চিনের সেনার? আমাদের ভূখণ্ড ছিনিয়ে নেওয়ার সাহস কীভাবে হয়?’

তারপর একটি ভিডিওবার্তায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় দেশের জন্য যাঁরা প্রাণ দিয়েছেন তাঁদের প্রতি শোক জ্ঞাপন করেন ওয়ানাড়ের সাংসদ। সেইসঙ্গে ওই ভিডিওতে মোদীর উদ্দেশে রাহুল বলেন, ‘দু’দিন আগে ভারতের ২০ জন সেনারা প্রাণ গেল। ওরা এই পরিবারগুলি থেকে তাঁদের সন্তানদের ছিনিয়ে নিল। এবার আপনি প্রকাশ্যে এসে সত্যিটা বলুন। চিন আমাদের জমিতে থাবা বসাচ্ছে, আমাদের ভূখণ্ড দখল করে নিচ্ছে, প্রধানমন্ত্রীজি আপনি নীরব কেন? আপনি কোথায় লুকোতে চাইছেন? আপনি সামনে আসুন। গোটা দেশ আপনার সঙ্গে রয়েছে। সামনে এসে সত্যিটা বলুন। ভয় পাবেন না।’

শুধু রাহুল গান্ধী নন। রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা, আনন্দ শর্মার মতো শীর্ষ সারির কংগ্রেস নেতারাও লাদাখ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা করেছেন। আনন্দ শর্মা টুইট করে লেখেন, ‘প্রধানমন্ত্রী এবার আপনি প্রকাশ্যে এসে দেশের মানুষকে আত্মবিশ্বাস দিন।’

আরও পড়ুন: উত্তপ্ত ভারত-চিন সীমান্ত, সর্বদলীয় বৈঠকের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রসঙ্গত, গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় ও চিনা সেনার মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় উদ্বিগ্ন ভারত সরকার। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই তিন-বাহিনীর প্রধান এবং চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফের সঙ্গে বৈঠক করেছেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গেও কথা বলেছেন রাজনাথ।

লাদাখে ইন্দো-চিন সংঘর্ষের জেরে উদ্বেগপ্রকাশ রাষ্ট্রপুঞ্জের। রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিবের অফিসের বিবৃতি, “ভারত-চিন দু’দেশকেই সংযত থাকার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি। দু’দেশই উত্তেজনা কমাতে উদ্যোগী হয়েছে। এই প্রচেষ্টা সন্তোষজনক।” ইতিমধ্যেই হিমাচলপ্রদেশে হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। চিনা সীমান্ত লাগোয়া কিন্নৌর, লাহুল-স্পিতিতে সতর্কতা জারি করেছে প্রশাসন। হিমাচল পুলিশের মুখপাত্র খুশল শর্মা জানিয়েছেন, সীমান্তবর্তী এলাকার বাসিন্দাদের সুরক্ষায় সবরকম সতর্কতামূলক পদক্ষেপ করা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close