fbpx
কলকাতাহেডলাইন

আদৌ কি গড়াবে বেসরকারি বাসের চাকা, একঘণ্টা অন্তর চলবে ভেসেলও

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: যতগুলো সিট, তত জন যাত্রী নিয়েই এবার ছুটতে পারবে বাস। সরকারি হোক বা বেসরকারি, আপাতত বাসে ২০ জনের নিয়মবিধি শিথিল করল রাজ্য সরকার। নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ঘোষণার পরই এখন বাসে যাত্রী কতজন হবে সেই চিন্তাই ঘুরপাক খাচ্ছে বাসমালিকদের মনে। বিষয়টি নিয়ে মতভেদ রয়েছে মালিক সংগঠনের মধ্যেও।

শনিবার সকাল পর্যন্ত যেটুকু আঁচ মিলেছে বেসরকারি বাস মালিকদের তরফে তাতে বোঝা যাচ্ছে বেসরকারি বাসের চাকা গড়ানো এখনও ঢের দেরী। বাস মালিকদের একাংশের মতে স্কুল কলেজ অফিস না খোলা পর্যন্ত যাত্রী হবে তো! করোনা আবহে সাধারণ মানুষ রাস্তায় নামবেন তো! অনেক সংগঠন আবার জানিয়েছে, নয়া নিয়মে বেসরকারি বাস কবে থেকে চলবে তা তারা আগামিকাল রবিবার জানাবে। তবে প্রাথমিকভাবে জানিয়েছেন, আগেই সব রুটে বাস নামবে না। শুরু হবে পরীক্ষামূলক পরিষেবা। তাতে যাত্রী হচ্ছে দেখলে তবে বাকি বাস নামবে। পাশাপাশি পুরনো ভাড়ায় কম যাত্রী নিয়ে বাস চালালে লোকসান হবে কি না তাও দেখা হবে। সকলেই অবশ্য ন্যূনতম ভাড়া বৃদ্ধির দাবি জানাবে সরকারের কাছে।

আরও পড়ুন: করোনা নিয়ে দেশের ১৪৫টি জেলাকে সতর্ক করল কেন্দ্র

রাস্তায় বাস নামিয়ে জ্বালানির খরচটাও তুলতে পারছেন না বাস মালিকরা। তার উপর রয়েছে সুরক্ষাবিধি। রোজ বাস স্যাটিটাইজ করতে হবে, একজন যাত্রী উঠে যাওয়ার পর কন্ড্রাক্টরকে সেই সিট স্যানিটাইজ করতে হবে, কোনও যাত্রীর কাছে টিকিট কাটতে যেতে পারবেন না কন্ড্রাক্টর। কলকাতার মতো শহরের রাস্তায় চলন্ত বাসে এত নিয়ম মানা কার্যত সম্ভব নয় বলেই সাফ জবাব বাস মালিকদের। তাতে সায় আছে বাসকর্মীদেরও। জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটের সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানালেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য শুনেছি। কিন্তু বলতে বাধ্য হচ্ছি এ ভাবে বাস চালানো সম্ভব নয়। বাস ভাড়া না বাড়ালে বাস চালানো দুষ্কর হয়ে পড়বে। বাস শিল্পের সঙ্গে চালক, কন্ড্রাক্টর, খালাসী সবাই জড়িয়ে। এমনকি বিভিন্ন গ্যারেজে বাসের যন্ত্রাংশ সারাইয়ের কাজ যারা করেন তাঁরাও জড়িয়ে আছেন এই বাস শিল্পের সঙ্গে। যে যাত্রী সংখ্যা নিয়ে বাস চালানোর কথা বলা হচ্ছে তাতে চলা সম্ভব নয়।

সড়ক পরিবহণের পাশাপাশি এবার জলপথে যাত্রী পরিষেবা চালু করছে পরিবহণ দফতর। ১ জুন থেকে ৯টি রুটে সকাল ৮টা থেকে সন্ধে‌ ৬টা পর্যন্ত এক ঘণ্টা অন্তর চালু হচ্ছে ভেসেল পরিষেবা। হাওড়া-শিপিং, হাওড়া-ফেয়ারলি, ফেয়ারলি-কুঠিঘাট ভায়া রতনবাবু-কাশীপুর-বাগবাজার, কুঠিঘাট-বেলুড়, নূরপুর-গাদিয়াড়া, নাজিরগঞ্জ-মেটিয়াবুরুজ, হাওড়া-বাগবাজার ভায়া আহিরীটোলা-শোভাবাজার, রামকৃষ্ণপুর- চাঁদপাল, চাঁদপাল-হাওড়া ভায়া ফেয়ারলি রুটে এই ভেসেল চলবে।

Related Articles

Back to top button
Close