fbpx
হেডলাইন

পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে জাঁকিয়ে পড়ল শীত, কলকাতায় তাপমাত্রা আরও কমল

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: কলকাতায় তাপমাত্রা আরও কমল, জাঁকিয়ে শীত পড়েছে জেলাতেও। বিশেষ করে দক্ষিণবঙ্গের পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে একধাক্কায় অনেকটাই কমে গিয়েছে তাপমাত্রা। উত্তরে চলছে শীতের দাপট। যা স্বাভাবিক। সমতল থেকে পাহাড় সর্বত্র তাপমাত্রা অনেকটা নেমেছে। সমতলের গড় তাপমাত্রা ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পাহাড়ে তা অনেকটাই নীচে। আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এই শীতের আমেজ বজায় থাকবে। খানিকটা শীত কমে শুক্রবার থেকে তাপমাত্রা বাড়তে পারে।

মঙ্গলবার দার্জিলিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৫.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কোচবিহারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জলপাইগুড়িতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মালদহে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬.৩ডিগ্রি সেলসিয়াস। শিলিগুড়ির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। জলাপাইগুড়ির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রবিবার দার্জিলিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৪.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কোচবিহারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জলপাইগুড়িতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৩.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মালদহে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৯.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শনিবার দার্জিলিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৬.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কোচবিহারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জলপাইগুড়িতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মালদহে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কালিম্পংয়ে ১০.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শুক্রবার দার্জিলিংয়ের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কোচবিহারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, জলপাইগুড়িতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মালদহে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কালিম্পংয়ে ১১.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

দক্ষিণের সমস্ত জেলায় নেমেছে পারদ। আবহাওয়ার সকালের আপডেট সেই তথ্যই দিয়েছে। হাওয়া অফিস আগেই জানিয়েছিল তিন থেকে পাঁচ ডিগ্রি নামবে পারদ। তাঁর বেশি নেমেছে তাপমাত্রা। হাওয়া অফিস আগেই জানিয়েছিল আকাশের মেঘ কাটবে। ঠিক সেটাই হয়েছে। তারপর রোদ উঠেছে পারদ নেমেছে। মঙ্গলবার বাঁকুড়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দিঘায় ১৪.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, আসানসোলে ১২.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ক্যানিংয়ে ১৪.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শ্রীনিকেতনে ১১.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। পানাগড়ে ৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রবিবার বাঁকুড়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, দিঘায় ১৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, আসানসোলে ১৪.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, হলদিয়া ১৮.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, শ্রীনিকেতনে ১৩.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আরও পড়ুন: রাতের অন্ধকারে তৃণমূলের পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতিকে ধারালো অস্ত্রের এলোপাথাড়ি কোপ

এতদিন ঘূর্ণাবর্তের জেরে শীত প্রবেশ করতে পারেনি বাংলায়।এবার সেই বাধা কাটিয়ে অগ্রহায়ণের চেনা বাংলা ধীরে ধীরে শীতের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছে। মূলত শীত ঢুকতে শুরু করে রবিবার থেকেই। এতদিন বৃষ্টির জন্য শীত বাধা পেয়েছিল রাজ্যে। শ্রীলঙ্কার উপকূলে তৈরি নিম্নচাপ শক্তি শালী হচ্ছে। তার টানে উত্তুরে বাতাস আরও শক্তি বাড়াবে। ফলে ঠান্ডা পড়ার প্রবণতা বাড়ছে। সকালের দিকে ঘন কুয়াশার প্রভাব থাকছে বিভিন্ন জেলায়।

অন্যদিকে গতকাল থেকে পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাব বেড়েছে উত্তর-পশ্চিম ভারতে। আগামীকাল বুধবার জম্মু কাশ্মীর, লাদাখ ও হিমাচল প্রদেশের বিভিন্ন অংশে তুষারপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। এর পাশাপাশি আরবসাগর ও বঙ্গোপসাগরের জোড়া ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কতাও দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। মৌসম ভবন জানিয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরের ঘূর্ণিঝড় ক্রমশ তামিলনাডু উপকূলের দিকে এগোচ্ছে। বুধবার বিকেলে মহাবলিপুরমের কাছে স্থলভাগের প্রবেশ করার সম্ভাবনা রয়েছে এই ঘূর্ণিঝড়ের। এর প্রভাবে তামিলনাড়ু উপকূলে বুধবার ঝোড়ো হাওয়া বইবে বলে সতর্কতা দিয়েছে হাওয়া অফিস। আবহবিদরা জানিয়েছেন, হাওয়ার গতিবেগ ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটারের বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই মত্‍স্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। বুধবার থেকে প্রবল ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে তামিলনাড়ু এবং অন্ধ্র উপকূলের বিক্ষিপ্ত অংশে।

 

Related Articles

Back to top button
Close