fbpx
অফবিটআন্তর্জাতিকহেডলাইন

মাত্র ৩০ সেকেন্ড! এই কাজটা করলেই ঠেকানো যাবে করোনা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: মারণ করোনা ভাইরাস থাবা বসিয়েছে গোটা বিশ্বে। এই মারণ ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রতিদিন বহু মানুষের মৃত্যু ঘটছে। এই ভাইরাস ঠেকাতে দিনরাত এক করে পরিশ্রম করে চলেছেন বিজ্ঞানীরা। এরই মাঝে গবেষণায় নয়া তথ্য উঠে এল।

 

জানা গিয়েছে, মাত্র ১০ মিলিলিটার মাউথওয়াশ দিয়ে ৩০ সেকেন্ড কুলকুচি করুন৷ তাহলেই করোনার সঙ্গে লড়ার জন্য অনেকটাই প্রস্তুত হতে পারবেন সাধারণ মানুষ৷ এই মাউথওয়াশ দিয়ে কুলকুচি করলে লালারসে করোনার জীবাণুর কর্মক্ষমতা অনেকটা কমবে৷ তবে এর জের বজায় থাকবে ২ ঘণ্টা৷

 

 

কোরিয়ান ইউনিভার্সিটি অব মেডিসিন জানাচ্ছে, ক্লোহেক্সিডাইন নামক মাউথওয়াশ দিয়ে মুখ ধুলেই করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ করা সম্ভব৷
ভারতীয় সংস্থা ICPA Health Products Ltd প্রায় ৩৫টি দেশে নিজেদের তৈরি মাল সরবরাহ করে, তারাই উৎপাদন করে ক্লোহেক্সিডাইন মাউথওয়াশ৷

 

 

এই গবেষণায় জানানো হয়েছে যে, লালার মাধ্যমে জীবাণু ছড়ানো রোধ করে এই মাউথওয়াশ৷ একবার ব্যবহারের পর ২ থেকে ৪ ঘণ্টা কিছুটা নিশ্চিত থাকা যায়৷ তাই হাসপাতালে বা সাম্প্রদায়িক সংক্রমণ রুখতে এর জুড়ি মেলা ভার৷

 

 

জানানো হয়েছে,  SARS-CoV-2-জীবাণুর উপস্থিতি মারাত্মকভাবে পাওয়া গেছে লালায়৷ তাই অন্যের সঙ্গে কথা বলার ক্ষেত্রে এটা ছড়িয়ে পড়ে ব্যাপক হারে৷ তাই সাম্প্রদায়িক বা হাসপাতালে যাতে এই জীবাণু না ছড়ায় তার জন্য অনেক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে৷ মাস্ক ছাড়া বাইরে বের হতে নিষেধ করা হয়েছে৷ তবে এই তরল পদার্থ দিয়ে মুখে কুলকুচি করলে করোনা ছড়ানোর ভয় সাময়িকভাবে অনেকটা কমবে বলে মত গবেষকদের৷

 

 

গবেষণায় আরও জানানো হয়েছে, বিভিন্ন ক্ষেত্রের চিকিৎসকরা তাদের রোগীদের ক্লোহেক্সিডাই মাউথওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে আসার জন্য বলতে পারেন৷ চিকিৎসককে দেখাতে তাদের ক্লিনিকে গেলে অনেক ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব মেনে রোগী দেখা সম্ভব নয়৷ বিশেষ করে দাঁত, ত্বক বা চোখের চিকিৎসা করতে হলে রোগীর কাছাকাছি আসতেই হবে চিকিৎসককে৷ দাঁতের চিকিৎসার ক্ষেত্রে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কম রাখতে, চিকিৎসকদের ১৫ থেকে ৩০ মিনিট অন্তর এই মাউথওয়াশ ব্যবহার করার কথা বলা হয়েছে৷

 

 

এর পাশাপাশি, রেড জোন থেকে বা কন্টেইনমেন্ট জোন থেকে এসে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিরা ক্লোহেক্সিডাইন মাউথওয়াশ প্রতি ২ ঘণ্টা অন্তর ব্যবহার করতেই পারেন৷ নিজের সুরক্ষার জন্য এই কাজটি করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, বলছেন গবেষকরা৷ এছাড়া উপসর্গহীন যারা, তারা নির্দিষ্টভাবে ব্যবহার করতে পারেন এই মাউথওয়াশ৷ এর ফলে সংক্রমণের ওপর কিছুটা হলেও লাগাম টানা যাবে বলে মত গবেষকদের৷

Related Articles

Back to top button
Close