fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

আচমকা চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে গিয়ে মৃত্যু তরুণীর! তদন্তে রেল পুলিশ

মিল্টন পাল, মালদা: একদিকে চলন্ত ট্রেনে মৃত্যু হল এক প্রৌঢ়ার। অন্যদিকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন থেকে পরে গিয়ে মৃত্যু হল এক মহিলার। পৃথক দুটি ঘটনা ঘটেছে মালদায়। দুটি মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রেল পুলিশ।

প্রথম ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার মালদা টাউন স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার পর দুর্ঘটনা ঘটে। মৃত ও প্রৌঢ়ার নাম রিতা শেরপা নামে(৬২)। বাড়ি দার্জিলিংয়ের সোনাদা এলাকায়। এদিন ওই প্রৌঢ়া কলকাতা থেকে পদাতিক এক্সপ্রেসে চেপে নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনে যাচ্ছিলেন। পথে মালদা টাউন স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার পরই তার মৃত্যু হয়। মালদা টাউন স্টেশনের বাইরে ট্রেন দাঁড় করিয়ে মৃতদেহ নামানো হয়।
রেল সূত্রে জানা গেছে, মৃত মহিলা ডায়াবেটিসের রোগি ছিলেন। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। কি কারনে মৃত্যু খতিয়ে দেখছে রেল পুলিশ।

অন্যদিকে চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু হল এক যুবতীর। সোমবার গভীর রাতে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের কাটিহার ডিভিশনের সামসী ও শ্রীপুর রেল স্টেশনের মাঝামাঝি এলাকার মাঝে দুর্ঘটনাটি ঘটে। মৃত যুবতীর নাম ভানলাল মানঘাই জুয়ালি (২৬) বলে রেল পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। ওই যুবতীর বাড়ি মিজোরামে। রেল পুলিশ যুবতীর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠিয়েছে। এই দুর্ঘটনার জেরে প্রায় দেড় ঘন্টা ট্রেনটি ঘটনাস্থলে আটকে ছিল।

রেল সূত্রে জানা গিয়েছে,পরিযায়ী শ্রমিক বোঝাই শ্রমিক স্পেশাল নামক ট্রেনটি মুম্বই থেকে আসছিল। ট্রেনটি নাগাল্যান্ড পর্যন্ত যাবে। সোমবার রাতে মালদা স্টেশন ছেড়ে সামসী স্টেশন ঢোকার আগেই ভগবানপুর রেলগেট ও শ্রীপুর রেল স্টেশনের মাঝামাঝি জায়গায় চলন্ত ট্রেন থেকে মিজোরামের যুবতী চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে যান।তিনি ট্রেনের গেটের মুখে দাঁড়িয়ে ছিলেন। ঘুমের ঘোরে থাকায় ওই যুবতী নিজেকে সামলাতে পারেনি বলে মনে করা হচ্ছে।

ওই যুবতীর কামরায় থাকা বাকি যাত্রীরা বিষয়টি জানতে পেরে মুহূর্তের মধ্যে চেন টেনে ট্রেন থামিয়ে দেন।ট্রেনে থাকা রেল পুলিশও বিষয়টি জানানো হয়। রেল পুলিশ ক্ষত-বিক্ষত অবস্থায় ওই যুবতীকে উদ্ধার করে সামসী রেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন। কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা ওই যুবতীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এরপর মালদা থেকে জিআরপি এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রেল পুলিশ।

মালদা আই সি জি আর পি ভাস্কর প্রধান বলেন,প্রথম ঘটনায় মৃত মহিলার ডায়বেটিক রোগ ছিল। তবে দুটি মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close