fbpx
দেশহেডলাইন

‘যাঁদের আত্মসম্মান আছে, তাঁরা ধর্ষিতা হলে নিজেকে শেষ করে ফেলবে’, ফের কং-নেতার মন্তব্যে বিতর্ক

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: কমল নাথের বিতর্কিত মন্তব্যের রেশ কাটতে না কাটতেই ফের কংগ্রেস নেতার মুখে মহিলাদের নিয়ে মন্তব্য। কেরলের কংগ্রেস  নেতা মুলাপল্লি রামচন্দ্রণ নতুন বিতর্ক তৈরি করলেন। তাঁর দাবি, যে মহিলার আত্মসম্মান রয়েছে, তিনি ধর্ষণের শিকার হলেই আত্মহত্যা করবেন। অথবা চেষ্টা করবেন যাতে তাঁকে আবারও যৌন নির্যাতনের শিকার না হতে হয়।

জনসমাবেশে যোগ দিয়ে তিনি বলেছেন, ‘যে ধর্ষিতার আত্মসম্মান রয়েছে সে নিজেকে শেষ করে ফেলবে।’ তাঁর দাবি, ‘কোনও মহিলা যদি সর্বসমক্ষে স্বীকার করে যে সে ধর্ষিতা, তাহলে তার কথা কেউ বিশ্বাস করবে না। আত্মসম্মান থাকলে সেই ধর্ষিতা আত্মহত্যা করে ফেলবে।’ কেরালার বাম সরকারকে আক্রমণ করতে গিয়ে রামচন্দ্রনের দাবি, কংগ্রেসকে কালিমালিপ্ত করতে বামফ্রন্ট সরিতা নায়ার নামে ওই মহিলাকে সাজিয়ে সামনে এনেছে। মুল্লাপ্পাল্লি রামচন্দ্রনের দাবি, ‘এই ধরনের বিবৃতিতে কেরালার মানুষ ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন। তিনি বলেছেন গোটা সিস্টেমটাই তাঁকে হেনস্থা করেছে। আমরা বুঝি একজন মহিলার শ্লীলতাহানির যন্ত্রণা, কিন্তু একজন মহিলা যদি ধর্ষিতা হন তাহলে গর্ব সহকারে তিনি আত্মঘাতী হবেন।’

ওই অভিযোগকারিণীকে কটাক্ষ করে তিনি আরও বলেন, ‘রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠেই ওঁ দাবি করেন ওঁকে ধর্ষণ করা হয়েছে।’ এরপর মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে তাঁর বক্তব্য, ‘মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী, আপনার খেলা এখানে চলবে না। ব্ল্যাকমেলের রাজনীতি করে লাভ নেই। কেরলের মানুষ সব বুঝতে পারছেন’। অভিযোগকারিণীকে ‘গণিকা’ বলেও কটাক্ষ করেন রামচন্দ্রণ।

আরও পড়ুন: দুর্গাপুর ব্যারেজের গেট ভেঙে যাওয়ায় সেচের জল সংকটের আশঙ্কায় কৃষকেরা

তাঁর এমন মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেছেন রাজ্যের মহিলা ও শিশুকল্যাণমন্ত্রী কেকে শৈলজা। তিনি জানাচ্ছেন, ‘‘উনি বলেছেন আত্মসম্মান থাকলে কোনও মহিলা ধর্ষিতা হলে আত্মহত্যা করবেন। ধর্ষণ কি কোনও মহিলার দোষ? আত্মসম্মান নেই বলে তাঁরা সকলে আত্মহত্যা করেন না? কোনও ধর্ষিতাই অপরাধী নন। যারা ধর্ষণ করে অপরাধী তারাই। তাদের শাস্তি হওয়া উচিত। কোনও মহিলার যখন এমন অভিজ্ঞতা হয়, তখন তাঁকে প্রচণ্ড শারীরিক ও মানসিক কষ্ট ভোগ করতে হয়। তাঁদের আত্মহত্যা করার কথা যিনি বলতে পারেন তাঁর মানসিকতা ভয়ংকর। এটা সম্পূর্ণ ভুল।’’

কমল নাথের বিগত ১৫ মাসের সরকারের মন্ত্রী ইমারতী দেবী এখন বিজেপির প্রার্থী। কয়েকদিন আগেই এই দলিত নেত্রীকে ‘আইটেম’ বলেছিলেন কমল নাথ। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল সেই ভিডিয়ো। কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধী তাঁর মন্তব্যের সমালোচনা করার পরেও কমল পিছু হটেননি। দুঃখপ্রকাশ করলেও প্রত্যাহার করেননি মন্তব্য। ফের কংগ্রেসের নেতার মুখে মহিলাদের নিয়ে এমন বিতর্কিত মন্তব্যে স্বাভাবিক ভাবেই বিড়ম্বনায় কংগ্রেস। কমল নাথের পালটা দিতে ছাড়েননি ইমারতী দেবীও। এমন নেতাকে দলে না-রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীকে।

Related Articles

Back to top button
Close