fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য কাঁথিতে

মিলন পণ্ডা, (পূর্ব মেদিনীপুর): এক গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথি শহরে। মেয়েকে খুন করা হয়েছে এই অভিযোগে মেয়ের শ্বশুরবাড়ির লোকজনের ওপর হামলা চালালো মেয়ের বাবার বাড়ির লোকজন। রীতিমতো কিল,  চড়,  ঘুষি,  লাথি খেতে হল মৃত গৃহবধূর স্বামী, শাশুড়ি ও দেওরকে।

 

 

 

মৃত্যু গৃহবধূর নাম রীনা জানা (২৭)।  স্বামী রাসরঞ্জন জানা। বাড়ি পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কাঁথি থানার পশ্চিম দারুয়া গ্রামে। বাবার বাড়ি এগরা থানার বড় নলগেড়িয়া গ্রামে। আট বছর আগে বিয়ে হয় তাদের। আজ সকালে বন্ধ ঘরের ভেতর ঝুলন্ত অবস্থায় স্ত্রীর মৃতদেহ দেখতে পান স্বামী। খবর পেয়ে মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে ছুটে আসেন তার বাবার বাড়ির লোকজন। মেয়ের স্বামী শাশুড়ি ওদেরকে রীতিমতো কিল চর ঘুষি লাথি মারতে থাকেন মেয়ের বাবার বাড়ির লোকজন। পরিকল্পনা করে খুন করা হয়েছে। অভিযোগ মৃত গৃহবধূর বাবার বাড়ির লোকজনের।

 

 

 

মৃত গৃহবধূর মা বিন্দু গিরির অভিযোগ তার মেয়ের সাথে খারাপ ব্যবহার করত শ্বশুরবাড়ির লোকজন।  ওর বাড়িতে এলে কোন দিন ওদের বাড়িতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি বাবার বাড়ির লোকজনকে। বিয়ের পর আট বছর কেটে গেলেও কোনদিন বাবার বাড়ি যেতে দেওয়া হয়নি মেয়েকে। যদিও গৃহবধূর বাবার বাড়ির তোলা অভিযোগ অস্বীকার করেছে মেয়ের স্বামী, শাশুড়ি ও দেওর। তারা বলেন, সবকিছুই স্বাভাবিক ছিল। কেন এই আত্মহত্যা তারাও বুঝে উঠতে পারছেন না। গন্ডগোলের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় কাঁথি থানার পুলিশ। পুলিশ মৃত মহিলার দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কাঁথি মহাকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। সাথে সাথে গৃহবধূর স্বামী শাশুড়ি ও দেওরকে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে।

Related Articles

Back to top button
Close