fbpx
অন্যান্যপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সানাইয়ের পরিবর্তে বিষন্নতার সুর… বন্ধ রাখা হল ধান্যকুড়িয়া দুই ঐতিহ্যবাহী জমিদার বাড়ির পুজো

শ্যাম বিশ্বাস, উওর ২৪ পরগনা: বাজবে না নহবতের সুর, আসবে না দর্শনার্থীরা, করোনার কাঁটায় এবার বন্ধ ধান্যকুড়িয়া জমিদার বাড়ির পুজো। দুশো বছরের এই পুজোয় এবার আর প্রাচীন ঐতিহ্য শোভা পাবে না। আর সেই কারণে বিষন্নতার সুর বাজছে বসিরহাটের ধান্যকুড়িয়ার মানুষের জীবনে। করোনা যেভাবে বিশ্বে মহামারীর আকার ধারণ করেছে সেই কারণে জমিদার বাড়ি এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে।

একটা সময় নিষ্ঠা ও রীতিনীতি উপচার মেনে জমিদার বাড়ি দালানের শোভা পেত এক কাঁঠামোর দেবী দুর্গা প্রতিমা। ধান্যকুড়িয়া গাইন ও সাঊ বাড়ির পুজো ২০০ বছরের ওপরে। তাদের বাড়ির পুজোর ইতিহাসে এই প্রথম বন্ধ রাখতে হল এই ঐতিহ্যবাহী পুজো। এই সিদ্ধান্ত জমিদার বাড়ির কাছে যেমন বেদনাদায়ক, তেমনি ধান্যকুড়িয়া ও বসিরহাটবাসীর কাছেও খুবই দুঃখজনক।
রাজ্য ছাড়িয়ে ভিন রাজ্য থেকে বহু দর্শনার্থীরা এই পুজো দেখতে আসত। এমনকী টলিউড পাড়ার কলাকুশলীরা এই পুজোতে ভিড় জমাতেন। আর তারকাদের দেখতে এই দুই জমিদার বাড়িতে আরও ভিড় জমত।

আলোয় আলোকিত থাকত জমিদার বাড়ির দালান থেকে শুরু করে বিস্তীর্ণ এলাকা, তার সঙ্গে সাউন্ড বক্সে চলত বিসমিল্লাহ খানের সানাই। সব মিলিয়ে পুজোর দিনগুলিতে এক নতুন পরিবেশ সৃষ্টি হত গোটা ধান্যকুড়িয়া গ্রামে। এবার পুজোর বোধন থেকে বিসর্জন পর্যন্ত সবটাই বিষন্নতা সুর শোনা যাবে। জমিদারবাড়ি আনাচে কানাচে।

আরও পড়ুন:রাষ্ট্রীয় আবেগের জয় হল: ভিএইচপি

গাইন পরিবারের সদস্য মনজিৎ গাইন ও সাঊ পরিবারের সদস্য জ্যো তিপ্রকাশ সাউরা বলেন, পুরনো স্মৃতি মনে পড়ে যাচ্ছে। গত কয়েক বছর আগেও ব্রাজিল ও ইন্দোনেশিয়া থেকে পর্যটকরা এসেছিল এই পুজোতে। পাশাপাশি ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর শেষ ছবি সত্যান্বেষী এই শুট হয়েছিল পুজোর দালানে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে আবীর চট্টোপাধ্যায় রজতাভ দত্ত অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের মায়া কুমারীর ছবির বহু দৃশ্য এখানে শুটিং হয়েছিল। করোনা আবহাওয়া জন্য কিন্তু সেই ছবি এখনও রিলিজ হয়নি। পুজো শুরু হওয়ার মুহূর্তে গান ফায়ারে পুজো শুরু হত। বিশেষ করে সন্ধিপুজোয় প্রচুর মানুষের ঢল নামত। এই দুই প্রাচীন জমিদার এবার সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি মানুষের সুস্থ কামনা করে এবার পুজো বন্ধ রাখতে হল।

Related Articles

Back to top button
Close