fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

যুবকের ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার! নৃশংস খুনের ঘটনায় আতঙ্ক সবংয়ে

তারক হরি, পশ্চিম মেদিনীপুর: সবংয়ে রাতের অন্ধকারে যুবকের ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার। মঙ্গলবার রাতে এক ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সবং ব্লকের বলপাই অঞ্চলের গয়লাপুকুর এলাকায়।

মঙ্গলবার রাতে গ্রামবাসীদের কাছ থেকে খবর পেয়ে সবং থানার পুলিশ বলপাই গ্রামের দক্ষিণ প্রান্তে বয়লাপুকুর শ্মশান থেকে এক যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে পিটিয়েই খুন করা হয়েছে যুবককে। ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে যান সবং থানার ওসি সুব্রত বিশ্বাস এবং অন্যান্য আধিকারিকেরা। মৃতদেহ উদ্ধার করার পর জায়গাটি গিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে তদন্তের স্বার্থে।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে মৃত যুবকের নাম খোকন জানা। বয়স আনুমানিক ২৬ বছর। যে জায়গায় মৃতদেহ পাওয়া গেছে সেখান থেকে মাত্র আড়াই তিন কিলোমিটার দূরেই মৃত যুবকের বাড়ি। যুবক বিবাহিত বলে জানা গেছে।

বয়লাপুকুর শ্মশানের শ্মশানযাত্রীদের জন্য নির্মিত বিশ্রাম ঘরে উপুড় হয়ে পড়ে থাকা অবস্থায় যুবকের মৃতদেহটি উদ্ধার হয়। ঘটনাস্থল থেকে কিছুটা দুরে একটি মোটা ভারি গাছের ডাল পাওয়া গেছে, যার এক অংশে রক্তের দাগ রয়েছে যা থেকে বোঝা যাচ্ছে একের পর এক আঘাত করা হয়েছে যুবককে। কী উদ্দেশ্য, কেন বা ওই যুবককে মারা হল, কোথা থেকে ধরে আনা হল যুবককে তার অনুসন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ।
সূত্রে জানা গেছে যুবকের চুরির অভ্যাস ছিল এবং একাধিকবার চুরি করতে গিয়ে ধরাও পড়েছে। একবার সাইকেল চুরি করতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরাও পড়েছিল যুবক। পাশাপাশি মদ্যপ হিসাবেও এলাকায় কুখ্যাতি ছিল। যুবকের। কিন্তু তারপরেও যে বিষয়টা উঠে আসে তা হল ভয়ানক ভাবে যুবককে পিটিয়ে মারার ঘটনা।

এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, “এলোপাথাড়ি নয় রীতিমতো সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে মারা হয়েছে যুবককে। বেঁচে থাকলেও সে যাতে ভালোভাবে হাঁটতে না পারে কোনও দিন সেই জন্য দুটো হাঁটুই গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে, ভেঙে দেওয়া হয়েছে হাতও। পরে হয়তো ওই ব্যক্তি বা ব্যক্তিদের মনে হয়েছে যুবককে বাঁচিয়ে রাখা যাবে না তাই মাথাতেও আঘাত করা হয়েছে। যুবক অপরাধী হতেই পারে কিন্তু তার জন্য আইন রয়েছে। এই নৃশংসতা, পিটিয়ে মারা সমর্থন করা যায় না। দোষীদের খোঁজ চলছে।”
যুবক কি চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছিল নাকি তাকে ডেকে আনা হয়েছিল মারার উদ্দেশ্য? একক ব্যক্তি ওই খুন করেছে নাকি একাধিক ব্যক্তি এই খুনে জড়িত? এই সব নানান প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: প্রতিমা নিরঞ্জনের আগেই পুড়ে ছাই সল্টলেকের একটি পুজো মণ্ডপ

মঙ্গলবার রাতেই তন্নতন্ন করে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করেছেন সবং থানার ওসি। অপেক্ষা করা হচ্ছে ময়নাতদন্তের রিপোর্টের জন্য।
পরিবারের লোকেরা অভিযোগ করেছেন খোকনকে পিটিয়ে মারা হয়েছে। দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে সবং থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সবং থানার পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close