fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

আপনি করোনা রুখতে চূড়ান্ত ব্যর্থ, মুখ্যমন্ত্রীকে কড়া চিঠি ধনকরের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নজিরবিহীন আক্রমণ করে পাল্টা চিঠি পাঠালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। চিঠিতে তিনি লেখেন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আপনি করোনা রুখতে চূড়ান্ত ব্যর্থ, সেই ব্যর্থতা ঢাকতেই অজুহাত হিসেবে আমাকে চিঠি দেওয়ার অবতারণা। ‘আপনার মুসলিম তোষণ নির্লজ্জের পর্যায় পৌঁছে গিয়েছে’, দীর্ঘ চিঠিতে একাধিকবার এ নিয়ে আক্রমণ জগদীপ ধনকরের। টুইটারে চিঠিটি পোস্টও করেন তিনি।

তিনি এদিন মোট ৩৭টি পয়েন্ট উল্লেখ করে ১৪ পাতার বিস্তারিত উত্তর দিয়েছেন। তাতে করোনা রুখতে মুখ্যমন্ত্রী কতটা ব্যর্থ তারই বিবরণ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি, তিনি চিঠির গোড়াতেই স্পষ্ট জানিয়েছেন, আমি মনোনীত নয়, আমায় নিয়োগ করা হয়েছেন। সেটা করেছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি। পাশাপাশি, রাজ্যপাল এই চিঠিতে অভিযোগ করেছেন, এমন এক রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান আপনি, যেখানে রেশন নিয়ে কেলেঙ্কারি হয়। দুর্গত মানুষের চাল নিয়ে রাজনীতি হয়। যেখানে নিজামুদ্দিন ফেরতদের সংক্রমণ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে কথা শুনতে হয়। সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আপনি।

মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করে রাজ্যপাল আরও বলেন, ‘যে রাজ্য বিধানচন্দ্র রায়ের মতো মুখ্যমন্ত্রী পেয়েছে, সেই রাজ্য মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে আরও বেশি কিছু আশা করে। মুখ্যমন্ত্রী মাইক হাতে, ঝাড়ু হাতে রাস্তায় বেরোবেন সেটা মোটেই কাম্য নয়। আপনি নিজে সংবিধানের কন্ঠরুদ্ধ করছেন সেখানেই আম্বেদকারের প্রসঙ্গ উল্লেখ করেছন, এই ঘটনা সত্যিই অবাক করার মতো।’

আরও পড়ুন: পঞ্চায়েতীরাজ দিবসে ‘ই গ্রাম স্বরাজ’ এবং ‘সম্ভিতা যোজনা’রও সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী

তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে লিখেছেন,  ‘আপনি যে বারবার বলছেন রাজ্যপাল একজন মনোনীত সদস্য এটা দুঃখজনক। এতে বোঝা যায় সংবিধান সম্পর্কে আপনি কিছুই জানেন না! তাছাড়া সংবিধানের আদেশ পালনে আপনি পুরোপুরি ব্যর্থ। ভয়ানক পরিস্থিতি সম্পর্কে বারবার কথা বলার চেষ্টা করা হলেও আপনার কাছ থেকে তেমন সাড়া মেলেনি। বরং আপনার তরফে প্রচুর গাফিলতি আছে। আপনি ও আপনার আধিকারিকরা সংবিধানকে অবজ্ঞা করছেন। আপনি লিখেছেন, রাজ্য সরকারের সব কর্মীরা এখন কোভিড-১৯ মোকাবিলায় ব্যস্ত। আপনার কথা মানতে হলে আমাকে ঘুমিয়ে থাকতে হয়! এই মহামারী শেষ না হওয়া পর্যন্ত রাজভবনেই হাত গুটিয়ে বসে থাকতে হয়। কিন্তু রাজ্যের এই চরম সঙ্কটের সময়ে রাজ্যপাল ঘুমিয়ে থাকতে পারে না।’ তিনি লিখেছেন, ‘যেমন শপথ নিয়েছি, তেমন কাজ করব। সংবিধানের মধ্যে থেকেই যা করার করব। চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড়িয়েও কাজ করব।

 

Related Articles

Back to top button
Close