fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

পালাতে তো হবেই- মাননীয়া, কিন্তু তার আগে লুঠের হিসাব দিয়ে যেতে হবে: সুজন

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পালাতে তো হবেই- মাননীয়া। কিন্তু তার আগে লুঠের হিসাব দিয়ে যেতে হবে বলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র কটাক্ষ করলেন বাম পরিষদীয় দলনেতা তথা সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী।

করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থতার প্রসঙ্গ তুলে ধরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল সরকার ভেঙে দেওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘কেন্দ্রের যদি মনে হয় রাজ্য করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ, তবে কেন্দ্রই এর ভার নিক।’

যদিও অমিত শাহ মুখ্যমন্ত্রীকে পরিস্কার করে জানিয়ে দিয়েছেন, ‘নির্বাচিত সরকারকে ফেলব কী করে।’ বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একথা বলার পর শুক্রবার এক বার্তায় তীব্র কটাক্ষ ছুঁড়ে দেন সুজন চক্রবর্তী। পালিয়ে বাঁচার চেষ্টা করছেন মুখ্যমন্ত্রী এই অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, ‘মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী আপনাকে তো সরে যেতে হবেই৷ জনতার রায় নিয়ে এক বছরের মধ্যে সরে যেতে হবে৷ পালিয়ে বাঁচার চেষ্টা করছেন৷ কেউ আপনাকে ছাড়বে না৷’

তবে সরে যাওয়ার আগে লুঠের সমস্ত হিসেব দিতে হবে দাবি করে সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘পালাতে তো হবেই- মাননীয়া। কিন্তু তার আগে লুঠের হিসাব দিয়ে যেতে হবে। শিক্ষা, কাজ, স্বাস্থ্য – বারোটা বাজিয়ে দেওয়া হয়েছে, তার জবাব? করোনা, আমফান, শ্রমিক, রাজ্যের আর্থিক হাল- এত বিপর্যস্ত কেন? গ্রামে গ্রামে তোলাবাজের বাহিনী তৈরি করেছেন৷ আপনার ঝান্ডা সঙ্গে রেখে, সেই বাহিনী চোখ রাঙাচ্ছে। করোনা, ডেঙ্গু, মিথ্যা তথ্যে ভরিয়ে দিয়েছেন।

রাজ্যের এই চরম সর্বনাশ করে দেওয়ার কৈফিয়ত কে দেবে? কৈফিয়ত দেবেন না?’

এর পরেই ঘুরিয়ে তৃণমূল-বিজেপির আঁতাতের কথা তুলে তিনি বলেন, মাননীয়া আপনাকে চলে তো যেতেই হবে৷ সেটা আপনিও বুঝে গিয়েছেন৷ তাই এখন পালিয়ে বাঁচার চেষ্টা করছেন৷ বিজেপি বা অমিত শাহ’র আঁচলের মধ্যে পালিয়ে বাঁচার চেষ্টা করছেন৷ কিন্তু বিজেপি বা অমিত শা’তে মুখ লুকিয়েও রেহাই মিলবে না। অপেক্ষায় থাকুন – মাননীয়া। এত সহজে মানুষ আপনাকে রেহাই দেবে না৷ কৈফিয়ত নিয়ে তবেই মানুষ ছাড়বে। বাংলার এই সর্বনাশের দায় আপনার। শহিদ হব, এই মনোভাব নিয়ে বেঁচে থাকার চেষ্টা করবেন না। মানুষই আপনাকে বিদায় করবে।’

 

Related Articles

Back to top button
Close