fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চিকিৎসকের চেষ্টায় কাটা কব্জি জোড়া লাগলো যুবকের

পাপ্পা গুহ, উলুবেড়িয়া: চিকিৎসকের চেষ্টায় কাটা কব্জি জোড়া লাগলো উলুবেড়িয়ার এক যুবকের। করাত কলে কাজ করার সময় মেশিনে কাটা পড়ে এক যুবকের হাতের কব্জি।  তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে নিয়ে যাওয়া হয় বাগনানের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। রবিবার প্রায় সাড়ে ৩ ঘন্টা অপারেশন করে ওই যুবকের কাটা কব্জি জোড়া লাগাতে সক্ষম হয় চিকিৎসকরা। বর্তমানে ওই যুবক অনেকটাই সুস্থ রয়েছেন।

জানা গেছে, আমতা ২ নং ব্লকের জয়পুরের বাসিন্দা কৃশানু মন্ডল একটি করাত কলের কর্মী ছিলেন। রবিবার সকালে করাত কলে কাজ করার সময় আচমকা তার বাম হাত মেশিনে ঢুকে যায়। এই দুর্ঘটনায় কৃশানুর কবজির প্রায় ৯০ শতাংশ অংশ কেটে যায়। রক্তাক্ত অবস্থায় কৃশানুকে প্রথমে স্থানীয় বিভূতিভূষণ ধর গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়, অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে পরে বাগনানের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। চিকিৎসক ডাঃ সুদীপ্ত মল্লিক প্রায় সাড়ে ৩ ঘন্টার অপারেশন করে কৃশানুর কব্জির কাটা অংশ জুড়ে দেন। বিষয়টি নিয়ে চিকিৎসক ডাঃ সুদীপ্ত মল্লিক জানান, দুর্ঘটনায় আহত যুবকের বাম হাতের কব্জির রেডিয়াল আটারি কেটে গিয়েছিল। পরে অপারেশন করে ধমনীগুলো জুড়ে দেওয়ায় বর্তমানে যুবক হাত নাড়াচাড়া করতে পারছে। চিকিৎসকের মতে দুর্ঘটনার পর তাড়াতাড়ি যুবককে হাসপাতালে আনায় এবং দ্রুত চিকিৎসা শুরু হওয়ায় যুবকের হাতের কব্জি জোড়া লাগানো সম্ভব হয়েছে। তিনি জানান যদি সঠিক সময় চিকিৎসা না হতো তাহলে একদিকে যেমন কব্জি জোড়া দেওয়া সম্ভব ছিলনা। অন্যদিকে সেইরকম হাতের কাটা অংশে পচন দেখা দিত।

অন্যদিকে চিকিৎসকের চেষ্টায় যুবকের কব্জি জোড়া লাগায় খুশি কৃশানু। তার মতে হাতের কব্জি কেটে যাওয়ার পরে কখনও ভাবিনি এটা আবার জোড়া লাগতে পারে। এদিন কৃশানু তার হাত জুড়ে দেওয়ার জন্য চিকিৎসক ডাঃ সুদীপ্ত মল্লিককে ধন্যবাদ জানান।

Related Articles

Back to top button
Close