fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শাসকদলের দুর্নীতির অভিযোগ তুলে দিনহাটা এসডিও দফতরে ডেপুটেশন ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার

তৃণমূলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগের পাশাপাশি দিনহাটা পুরসভার বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতির অভিযোগ তুলে মহকুমা শাসকের দফতরের সামনে বিক্ষোভ ও ডেপুটেশন দিল বিজেপির যুব সংগঠন ভারতীয় জনতা যুব মোর্চা

নিজস্ব সংবাদদাতা দিনহাটা: তৃণমূলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগের পাশাপাশি দিনহাটা পুরসভার বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতির অভিযোগ তুলে মহকুমা শাসকের দফতরের সামনে বিক্ষোভ ও ডেপুটেশন দিল বিজেপির যুব সংগঠন। সংগঠনের পক্ষ থেকে শুক্রবার মহকুমা শাসকের কাছে নয় দফা দাবীপত্র দিয়ে সমাধানের দাবি জানান।

এদিন বিক্ষোভ শুরুর আগে দিনহাটা শহরের সংহতি ময়দান থেকে একটি মিছিল শহর পরিক্রমা করে। সেখানে অংশ নেয় বিজেপির কোচবিহারের সংসদ নিশীথ প্রামানিক, যুব মোর্চার জেলা সভাপতি অজয় সাহা, বিজেপি কোচবিহার জেলা সহ-সভাপতি প্রাক্তন বিধায়ক অশোক মণ্ডল, দলের জেলা সম্পাদক সুদেব কর্মকার, মদনমোহন গোস্বামী, সুধাংশু রায়, হিমাংশু দাস, অমিত সরকার প্রমুখ। বিজেপির এদিনের বিক্ষোভ ডেপুটেশন কে ঘিরে কোন রকম যাতে অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেই লক্ষ্যে আগে থেকেই মহকুমা শাসকের দফতর চত্বরে দিনহাটার এসডিপিও মানবেন্দ্র দাস, আইসি সঞ্জয় দত্তের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন ছিল। মহকুমা শাসকের দপ্তরে প্রধান ফটক ব্যারিকেড করে রাখে পুলিশ।বিক্ষোভ চলাকালীন এক প্রতিনিধি দল মহকুমা শাসকের সাথে দেখা করে তার হাতে দাবিপত্র তুলে দিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের আবেদন জানান।

বিজেপি যুব মোর্চার জেলা নেতা অজয় সাহা বলেন,” সারা রাজ্য জুড়ে সন্ত্রাস চলছে। এই রাজ্যে গত দশ বছরে গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছে। মানুষ তাদের সঠিক মতামত প্রয়োগ করতে পারছে না। উপরন্তু তৃণমূল সরকার আজ কাটমানি সরকারে পরিণত হয়েছে। কাজেই এর বিরুদ্ধে সারা রাজ্যের মানুষ আন্দোলনে নেমেছে। পাশাপাশি তিনি বলেন, দিনহাটা পুরসভায় দিনের পর দিন দুর্নীতি চলছে। সাধারণ মানুষকে ঘর দেবার নাম করে টাকা তোলা হচ্ছে। এর সঙ্গে জড়িত দিনহাটা পুরসভার প্রশাসক বিধায়ক উদয়ন গুহ। এই পরিস্থিতির অবসান দরকার। নির্বাচনের দিন এখনো ঘোষণা না হলেও সময় যত এগিয়ে আসছে রাজ্যের শাসক দল সন্ত্রাসের উপরে ভর করে ক্ষমতায় টিকে থাকার চেষ্টা করছে। তৃণমূলের সন্ত্রাস বন্ধের দাবির পাশাপাশি দিনহাটা পুরসভার পুর পরিষেবা নিয়েও বিস্তর অভিযোগ রয়েছে।বিজ্ঞানভিত্তিক পরিকল্পনা করে শহরের নিকাশি নালার স্থায়ী সমাধান, চওড়া হাটবাজারে অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা করা, পুরসভা এলাকার সমস্ত রাস্তা সম্প্রসারণ বিভিন্ন দাবি তুলে ধরা হয়।”
মহকুমা শাসক হিমাদ্রি সরকার বলেন,”সংগঠনের দাবি গুলি খতিয়ে দেখা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close